যেকোনো তরকারির স্বাদ বাড়বে দ্বিগুণ! শুধুমাত্র সহজ ঘরোয়া উপায়ে বাড়িতেই বানিয়ে নিন এই কিচেন কিং মশলা

নিজস্ব প্রতিবেদন : আমাদের রান্নাঘরে যেকোনো রান্না তৈরি করতে গেলেই সব থেকে প্রয়োজনীয় যে উপকরণ সেটা হলো মসলা। মসলা ছাড়া কখনই কোন ভাবে রান্নায় স্বাদ নিয়ে আসা কিন্তু একেবারেই সম্ভব হয় না। আজকাল বাজারের বিভিন্ন দোকানে কিন্তু নানান ধরনের সাধের মসলা কিনতে পাওয়া যায়। তবে সেগুলোতে একেবারে ঘরোয়া এবং পারফেক্ট স্বাদ কিন্তু থাকে না।

কারণ বাজারে যে মসলাগুলো তৈরি করা হয় সেগুলোতে নানান ধরনের ফ্লেভার মেশানো হয়ে থাকে। স্বাভাবিকভাবেই এগুলির স্বাদে অনেকটাই পরিবর্তন চলে আসে। অর্থাৎ এগুলিকে কিন্তু আর খাঁটি মসলা বলা যায় না। আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনে আমরা তৈরি করে নেব কিচেন কিং মসলা। আসুন জেনে নেওয়া যাক পদ্ধতি।

কিচেন কিং মসলা তৈরির পদ্ধতি:

এই মসলা তৈরি করতে হলে প্রথমেই আপনাদের একটি প্যানের মধ্যে কিছুটা পরিমাণে ছোলার ডাল নিয়ে নিতে হবে। এবারে দুই থেকে তিন মিনিট পর্যন্ত একেবারে লো ফ্লেমে এটাকে আপনাদের হালকা করে ভেজে নিতে হবে। এরপর আপনাদের আরো কিছু মসলা গ্যাসে সেঁকে নিতে হবে তার জন্য কিন্তু অবশ্যই গ্যাসের ফ্লেম একেবারে নিচে রাখবেন।

এবার আপনাদের প্যানের মধ্যে নিয়ে নিতে হবে ২ টেবিল চামচ পরিমাণ সাবু ধনে, এক টেবিল চামচ জিরা, হাফ চা চামচ সাদা জিরে, এক টেবিল চামচ মৌরি, এক টেবিল চামচ সর্ষে, এক থেকে দুই টেবিল চামচ গোলমরিচ, দুইটি স্টার এনিস, ৮ থেকে ১০ টি ছোট এলাচ, দুটি বড় এলাচ, অর্ধেক দারচিনি টুকরো, দুটি জায়ফল, সাত থেকে আটটি লবঙ্গ, কিছুটা পরিমাণ কাশ্মীরি লাল লঙ্কা আর কিছুটা নরমাল শুকনো লঙ্কা, তিন থেকে চারটি তেজপাতা। এবার শুকনো খোলায় এই মসলাগুলোকে আপনাদের চার থেকে পাঁচ মিনিট সময় পর্যন্ত রোস্ট করে নিতে হবে।

যতক্ষণ পর্যন্ত না ভালোভাবে এই মসলাগুলো থেকে সুগন্ধ বেরিয়ে আসছে ততক্ষণ পর্যন্ত কিন্তু আপনাদের লো ফ্ল্যেমে ভালোভাবে ভাজতে হবে। খুব বেশি কিন্তু গ্যাসের আচ কোনমতেই বাড়াবেন না তাহলে কিন্তু মসলাগুলো জ্বলে যেতে পারে সে ক্ষেত্রে আর এতে কোন রকমের স্বাদ থাকবে না। অবশ্যই মসলাগুলো ভাজার সময় আপনারা কিছুক্ষণ অন্তর অন্তর নাড়াচাড়া করতে থাকবেন।

এরপর আপনাদের এর মধ্যে যোগ করে দিতে হবে এক টেবিল চামচ পরিমাণ মেথি দানা, এক টেবিল চামচ পরিমাণ পোস্ত দানা। তারপর আবারো দুই থেকে তিন মিনিট পর্যন্ত রোস্ট করুন। এবার গ্যাসের ফ্লেম অফ করে যতক্ষণ পর্যন্ত না মসলা ঠাণ্ডা হয়ে যাচ্ছে ততক্ষণ পর্যন্ত অপেক্ষা করতে থাকুন। এবার সমস্ত উপকরণ গুলিকে মিক্সির মধ্যে নিয়ে নিতে হবে ঠান্ডা হয়ে যাওয়ার পরে, তারপর গ্রাইন্ড করে একটি মিহি পাউডার তৈরি করে নিতে হবে। পাউডার তৈরি করার পরে এর মধ্যে আরও কিছু জিনিস আপনাদের যোগ করতে হবে।

এই মসলার পাউডারের মধ্যে আপনাকে দিয়ে দিতে হবে সামান্য পরিমাণে হলুদ গুঁড়ো, কিছুটা পরিমাণে দিতে হবে ব্ল্যাক সল্ট,এক টেবিল চামচ রসুন পাউডার, এক টেবিল চামচ অনিয়ন পাউডার। এছাড়াও দিতে হবে কিছুটা পরিমাণে আদা পাউডার, ছোট চামচ এর এক চামচ লবণ এবং এক টেবিল চামচ কসুরী মেথি। ব্যাস তারপরে সমস্ত উপকরণ দিয়ে আরও একবার গ্রাইন্ড করে নিলেই কিন্তু তৈরি হয়ে যাবে আপনাদের কিচেন কিং মসলা।

গরম মসলা তৈরির রেসিপি:

কিচেন কিং মসলা ছাড়াও আমরা আপনাদের সাথে একটা গরম মসলার রেসিপি শেয়ার করে নেব। রান্নায় স্বাদ আনার জন্য আপনারা এটাকেও সহজেই ব্যবহার করতে পারবেন। এটি তৈরি করার জন্য আপনাদের প্রথমেই প্যানের মধ্যে এক থেকে দুই কাপ পরিমাণ সাবু ধনে নিয়ে নিতে হবে। তারপর দুই থেকে তিন মিনিট পর্যন্ত এটাকে শুকনো খোলায় রোস্ট করে নিন।

যতক্ষণ পর্যন্ত না এটা থেকে সুন্দর গন্ধ আসছে ততক্ষণ পর্যন্ত এটাকে ভালোভাবে রোস্ট করতে থাকুন। তবে কোনোভাবেই কিন্তু এই সময় গ্যাসের আঁচ বাড়িয়ে রাখবেন না তাহলে মসলা পুড়ে যেতে পারে। এবার এই ধনেগুলোকে একটা পরিষ্কার প্লেটে রেখে দিন এবং ঠান্ডা হওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করুন। এবার ওই প্যানের মধ্যেই আপনাদের নিয়ে নিতে হবে কিছুটা পরিমাণ জিরে এবং ২ মিনিট সময় পর্যন্ত রোস্ট করে নিতে হবে।

একই রকম ভাবে শুকনো খোলায় ভেজে নিয়ে আপনাদের ঠান্ডা হওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে। ঠিক এভাবেই আপনাদের কড়াইতে গোল মরিচ, 15 থেকে 20টা লবঙ্গ, কালো এলাচ, চার থেকে পাঁচটি ছোট দারচিনি স্টিক, জায়ফল, এলাচ, দুইটি স্টার এনিস, দুই থেকে তিনটি জয়িত্রী এবং সামান্য পরিমাণে মৌরি নিয়ে বেশ কিছুক্ষণ সময় পর্যন্ত রোস্ট করে নিতে হবে।

কিছুক্ষণ রোস্ট করার পরে এতে দুই থেকে তিনটি তেজপাতা ভেঙে দিয়ে আরও কিছুক্ষণ নাড়াচাড়া করে পাত্রের মধ্যে নিয়ে নিন। আবারো সমস্ত উপকরণ গুলিকে একসঙ্গে করে আপনাদের মিক্সিতে গ্রাইন্ড করে নিতে হবে। ব্যাস তাহলেই তৈরি হয়ে যাবে আপনাদের গরম মসলার গুড়ো।

সম্পূর্ণ ঘরোয়া পদ্ধতিতে তৈরি এই খাঁটি গরম মসলার গুঁড়ো দিয়ে কত সহজেই আপনারা বিভিন্ন রান্না অসাধারণ স্বাদযুক্ত করতে পারবেন সেটা আর হয়তো আপনাকে বলার প্রয়োজন হবে না। আজকের এই বিশেষ দুটো মসলার রেসিপি আপনাদের কেমন লাগলো তা অবশ্যই আমাদের জানাতে পারেন এবং এই ধরনের আর কোনো রকম টোটকা আপনাদের জানা থাকলে সেটা আমাদের কমেন্ট বক্সে শেয়ার করে নেওয়ার অনুরোধ রইল।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button