পুকুরে স্নান করতে নেমে এভাবে প্রা-ণ হা-রাতে হবে, ভাবতেও পারেননি যুবক, ভাইরাল ভিডিও!

নিজস্ব প্রতিবেদন :- মাঝেমধ্যেই আমাদের সাথে ঘটে যায় এমন কিছু ঘটনা মৃ-ত্যুর থেকে কোন অংশে কম নয় । এ কথা আপনি বলতে পারেন নাক বরাবর মৃ-ত্যু যদি কোনো কারণে বেরিয়ে যায় তাহলে সেই ঘটনাকে হয়তো বর্ণনা করা সম্ভব হবে । এবং এই সমস্ত ঘটনাগুলো খুব সচরাচর না দেখা গেল মাঝেমধ্যে দেখা যায় । সেই সমস্ত ঘটনাগুলো ক্যামেরাব-ন্দি হওয়ার পর যখন সোশ্যাল মিডিয়াতে সবার সামনে উঠে আসে তখন ঝ-ড়ের গ-তিতে ভাইরাল হয় । এবার ঠিক সেরকম একটি ঘটনা দেখা গেল সম্প্রতি ইউটিউবে।

সাপকে নিয়ে কৌ-তুহলের শেষ থাকে না আমাদের । প্রতিনিয়ত সাপের সম্পর্কে নানান রকমের তথ্য জানার চেষ্টা করে থাকি আমরা । গ-ভীর জ-ঙ্গলের সা-প যদি কোনো কারণে বসতবাড়িতে বা জনবসতিপূর্ণ এলাকা তে উপস্থিত হয় তাহলে সেটি আ-ত-ঙ্কের প-রিবেশ সৃষ্টি করবে এমনটা খুব স্বাভাবিক । তার পাশাপাশি অনেকে নিজের বাড়িতে সা-প পু-ষে রাখে বিভিন্ন ধরনের পরীক্ষা-নিরীক্ষা করার জন্য । কেউ কেউ আবার জীবিকা নির্বাহের জন্য কিন্তু সা-পকে বাড়িতে পু-ষে রাখে । এ ঘটনা প্রমাণ আমরা গ্রামে গঞ্জে গেলে দেখতে পাব ।

তবে সম্প্রতি যে ভিডিওটি প্রকাশিত হয়েছে সেটি রীতিমতো যথেষ্ট ভ-য়ঙ্ক-র এবং আ-তঙ্কে । কারণ বাড়ির মধ্যে পুষে রাখা দুইটি সা-পকে স্নান করাতে নিয়ে এলেন এক যুবক । আর তারপরে ঘ-টে গে-ল এই বি-পদ। সম্প্রতি ইউটিউবে ভিডিও প্রকাশিত হয়েছে যেটি অত্যন্ত ভ-য়ঙ্কর এবং আ-তঙ্কের । সেখানে দেখা যাচ্ছে যে বাড়ির মধ্যে পুষে রাখা বিশালাকৃতির বড় দুইটি সা-পকে জলাশয়ের মধ্যে স্নান করাতে নিয়ে এসেছে এক যুবক । এবং সেই সা-প দুটি জলের কিনারে থেকে জলের আনন্দ উপভোগ করছে । এমন টা আপনি ভিডিও দেখলে বুঝতে পারবেন ।

কিন্তু হঠাৎ করেই সে যুবক সা-প এর সাথে খেলা করার চেষ্টা করতে থাকে । কিন্তু সেই সা-প গু-লি সময়ের সাথে সাথে সেই যু-বক এর উ-পর রে-গে যা-য় । যার ফলে বারবার তাকে আ-ক্রমণ করার চেষ্টা করে । কিন্তু বি-ফলে যায় । অবশেষে দেখা যাচ্ছে যে যুবকটি একটি সা-পকে রীতিমতো আয়ত্তে এনে তার মা-থার ও-পর চু-ম্বন করে বসে । এই ঘটনাটি যেমন ভ-য়ঙ্কর ঠিক তেমনি আ-তঙ্কের । কারণ যদি কোনো কারনে সেই সাপটি ছো-বল মা-রত তাহলে জীবন ফিরে পাবার কোন সম্ভাবনা থাকতো না । ইতিমধ্যে ভিডিওটি ভাইরাল হয়েছে নেট দুনিয়াতে । ছড়িয়ে পড়েছে সর্বত্র ।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button