যেভাবে কারখানায় বড় বড় পাথর থেকে মেশিনে তৈরি হয় বিট লবণ, রইল ভাইরাল ভিডিও!

নিজস্ব প্রতিবেদন :- দেখুন রান্নায় স্বাদ আনার জন্য বা অন্যান্য যাবতীয় কাজের জন্য নুনের ব্যবহার আমরা করে থাকি । এবং এই নুনের ব্যবহার এতটাই গুরুত্বপূর্ণ যে নুন ছাড়া আমরা একটা দিনও পার করতে পারিনা । সাধারণত সাদা রঙের হয়ে থাকে এই নুন । কিন্তু এর পাশাপাশি এক ধরনের নুন পাওয়া যায় যেটাকে বিট লবণ বলা হয় । বিশেষ কোনো কাজে যেমন কাঁচা পেয়ারা বা বিশেষ কোনো রান্নার ক্ষেত্রে এই লবণের ব্যবহার করা হয়ে থাকে । কিন্তু আপনি কি জানেন এই বিট লবণ কোথা থেকে সংগ্রহ করা হয় কিভাবে বাজারে আসে এই সম্পর্কিত যাবতীয় তথ্য ?

জানেন না যদি তাহলে আজকের এই প্রতিবেদন আপনাদের জন্য । কারণ আজকের প্রতিবেদন আপনাদেরকে জানাবো কিভাবে বিট লবণ তৈরি করা হয় । রান্নার কাজে হোক বাদ আলাদা যেকোনো কাজে ব্যবহার হয় বিট নুন । নুনের থেকে স্বল্প পরিমাণে আলাদা স্বাদ এর হয়ে থাকে এটি । এটিকে অনেকে ব্ল্যাক সল্ট বা কালো নুন বলে । কিন্তু এটি কোথা থেকে উৎপন্ন হয় কিভাবে তৈরি হয় প্রথম কোথায় পাওয়া গেছিল সেই সম্পর্কে যাবতীয় তথ্য মানুষ জানে না আজকে জানাবো এই প্রতিবেদনের মাধ্যমে।

পাকিস্তানের একটি অঞ্চলে প্রথম সন্ধান পায় ব্রিটিশ আমলের এক রাজা । ঘটনাটি একটু আলাদা রকম ভাবে করেছিল । সে শি-কারের জন্য ঘোড়াকে নিয়ে সেই পথ দিয়ে যাচ্ছিল । এবং হঠাৎ লক্ষ্য করে যে তাদের ঘোড়া মাটি চাটতে শুরু করে । তখন সে রাজার সন্দেহ হয় সেই মাটির প্রতি । তারপরে অনেক রকম চেষ্টাচরিত্র করার পর জানা যায় সেখানে বিটনুন সম্ভব রয়েছে । চারিদিক থেকে পাহাড়ে ঘেরা সেই অঞ্চলের মধ্যবর্তী অংশটি বৃষ্টির সময় ব্যা-পক পরিমাণে জল জমে থাকত এবং সেই জল সঞ্চয় পরিণত হয়েছে এমনটা মনে করে অনেকে।

যত উন্নতি হয়েছে তত উন্নত হয়েছে আমরা । তার পাশাপাশি সে খননকার্য শুরু হয়ে গেছে অনেকদিন ধরে । পাকিস্থান বিটনুন সরবরাহ করে ব্যা-পক পরিমাণে মুনাফা অর্জন করে ভারত এবং ভারতের বাইরে বিভিন্ন দেশ গু-লি থেকে । প্রথমে গর্ত করে তারপর ডিনামাইট ব্লাস্ট করিয়ে টুকরোগুলোকে আনা হয় । তারপর সেখান থেকে পরিশোধন করে নানান রকম কেমিক্যাল মিশিয়ে বাজারে প্যাকেটজাত করা হয় ।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button