গরম ভাত দিয়ে আর কিছু লাগবে না যদি থাকে পটলের এই রেসিপি, খেতে হয় দারুণ টেস্টি, রইল পদ্ধতি!

নিজস্ব প্রতিবেদন :- প্রতিনিয়ত একঘে-য়েমি রান্না থেকে এবার মুক্তি পেতে চলেছেন । কারণ সম্প্রতি যে রেসিপিটি আপনাদের সামনে তুলে ধরতে চলেছি আজকের এই প্রতিবেদনের মাধ্যমে রেসিপিটি জানলে আপনি রীতিমত অ-বাক হবেন এবং ভাববেন কিভাবে এত অল্প সময়ে এত অল্প উপকরণ দিয়ে সুস্বাদু রান্না তৈরি করা যেতে পারে । তাহলে আর বেশি দেরি না করে আসুন দেখে নিই কীভাবে এটি তৈরি করা যাবে ।

প্রতিদিন নতুন ধরনের রান্না খাবার খেতে ইচ্ছে হয় আমাদের । কিন্তু ব্যস্ততম জীবনে তা কখনও কখনও হয়ে ওঠে না । বাড়িতে রান্না করার মজা অনেকখানি আলাদা । রেস্তোরাঁ থেকে অর্ডার দিয়ে খাবার আনা যেতেই পারে কিন্তু সেই খাবার এবং বাড়িতে নিজের হাতে তৈরি খাবারের মধ্যে আকাশ-পাতাল তফাৎ থেকে থাকে । তাই আজকের এই প্রতিবেদনের মাধ্যমে আপনাদেরকে জানাবো যে যতই ব্যস্ত থাকুক না কেন একবার অন্তত বাড়িতে এই রেসিপিটি বানিয়ে দেখুন । নি-মিষের মধ্যে এক থালা ভাত পরিষ্কার হয়ে যাবে।

আজকে যে রেসিপির কথা আপনাদেরকে বলতে চলেছি সেটি পটল সংক্রান্ত একটি রেসিপি । প্রথম পটল গুলোকে ভাল করে ধুয়ে নিতে নিতে হবে । ও ছাল ছড়িয়ে রাখতে হবে । তারপর কড়াইয়ে মধ্যে কিছুটা তেল দিতে হবে । দিতে হবে সামান্য পরিমাণ নুন এবং হলুদ । এরপর সেই আগে থেকে ছাল ছাড়িয়ে রাখা পটল গুলিকে ভাল করে ভেজে নিতে হবে। দরকার হলে ৫-৭ মিনিট ঢাকা দিয়ে ভাল করে ভেজে নিতে হবে । কোন অংশে যেন কাচা থাকে । এরপর একটি পাত্রে তুলে রাখুন সেগু-লিকে ।

এরপর সে কড়াই এর মধ্যে দিতে হবে এক চামচ কালোজিরে এবং তার মধ্যে দিতে হবে আগে থেকে বেটে রাখা আদা লংকা এবং জিরে পেস্ট । এই সমস্ত উপকরণ গুলো বেশ ভাল করে নাড়তে হবে । এবং তার মধ্যে দিতে হবে সামান্য পরিমাণ কাশ্মীরি লঙ্কার গুঁড়ো এবং এক চামচ পরিমাণ নুন । তারপর তার মধ্যে যোগ করে দিতে হবে আগে থেকে ভেজে রাখা পটল গু-লিকে ।সামান্য পরিমান জল যোগ করে ঢাকা দিয়ে রেখে দিন তিন থেকে চার মিনিটের জন্য ।যখন সেই জল কমে আসবে এবং লাল হয়ে আসবে তখন গ্যাসটিকে বন্ধ করে পরিবেশন করে দিন এই রেসিপিটি । মিলবে প্রশংসা।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button