এবার ঘরোয়া কাজ হবে আরও সহজ, গৃহিণীদের জন্য রইলো ৭টি দুর্দান্ত কার্যকরী ঘরোয়া টিপস!

নিজস্ব প্রতিবেদন :- প্রতিদিনের সংসারের কাজের মাঝে আমরা প্রায়শই কিন্তু নানা অসুবিধার মুখে পড়ি। তবে বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই কিন্তু দেখা যায় সেই সমস্ত সমস্যার সমাধান হয় না। আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনে আমরা কিছু ছোটখাটো টিপস নিয়ে আপনাদের সামনে হাজির হয়েছি। এই টিপসগুলি আপনারা যদি মনোযোগ সহকারে পালন করতে পারেন সে ক্ষেত্রে কিন্তু সংসারের অনেক কাজ দেখবেন অত্যন্ত সহজ হয়ে গিয়েছে। চলুন আর দেরি না করে আমাদের আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনটি শুরু করা যাক। তার আগে আপনাদের জানিয়ে রাখি যদি এই সমস্ত টিপসগুলির পাশাপাশি আপনাদের নিজস্ব কোন টিপস জানা থাকে তা কিন্তু আমাদের পাঠকদের সাথে কমেন্ট সেকশনে শেয়ার করে নিতে ভুলবেন না।

  • বিশেষ কিছু সাংসারিক টিপস:

১) অনেকের বাড়িতেই নতুন জামা কাপড় নিয়ে আসার পরে যখন প্রথম বার কাঁচা হয় একটা ভয় লেগে থাকে যে সেটি রং উঠে যাবে কিনা! যদি আপনাদেরও এমন মনে হয়ে থাকে সেক্ষেত্রে এই নতুন জামা বা কাপড় কাচার আগে কিছুক্ষণ লবণ মেশানো জলে ভিজিয়ে রাখতে পারেন। তারপর খুব সাধারন ভাবে ডিটারজেন্টে আপনারা এটি কে কে জানাবেন দেখবেন কোন রকমের রং উঠবে না। এটি কিন্তু একটি অসাধারণ কার্যকরী টিপস।

২) গরমকালে কিন্তু ঘরে পিঁপড়ে এবং মাছের উপদ্রব অত্যন্ত বেশি দেখা যায়। এই সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে আপনারা এক লিটার জলের মধ্যে কিছুটা পরিমাণ নুন মিশিয়ে তাতে একটি মিশ্রণ তৈরি করে নিতে পারেন। এবারে এই মিশ্রণের মধ্যে কাপড় ভিজিয়ে আপনারা যদি আপনাদের ঘর মুছে নিতে পারেন তাহলে কিন্তু মাছি হোক কিংবা পিঁপড়ে আর কোনো কিছুর উপদ্রব থাকবে না।

৩) এবারে আমরা যে রেমিডিটি তাই করবো তাতে আপনাদের একটি জলের মধ্যে বেকিং সোডা মিশিয়ে নিতে হবে। এই মিশ্রণটি ঘরের যে সমস্ত কোনায় আরশোলার উপদ্রব সব থেকে বেশি দেখা যায় সেখানে স্প্রে বোতলের সাহায্য আপনারা স্প্রে করে দিতে পারেন। দেখবেন নিমিষেই আপনার ঘর থেকে আরশোলার উপদ্রব অনেকটাই কমে গিয়েছে।

৪) চতুর্থ যে টিপসটি আপনাদের সাথে শেয়ার করে নেব সেটি কিন্তু ভীষণ কার্যকরী। অনেক বাড়িতে মাকড়সার উপদ্রব খুব বেশি পরিমাণে দেখা যায়। আপনারা এই সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে একটি স্প্রে বোতলে কিছুটা পরিমাণ জল আর ব্লিচিং পাউডার মিশিয়ে নিতে পারেন। এবারে যেসব জায়গাতে মাকড়সা আপনারা বেশী দেখতে পাচ্ছেন সেখানে এই মিশ্রণটি স্প্রে করে দিন। এভাবে বেশ কিছুদিন করলেই কিন্তু আপনাদের বাড়িতে আর মাকড়সা উৎপাত করবে না।

৫) এমন অনেক মানুষ রয়েছেন যারা ফুলদানিতে ফুল সাজাতে অত্যন্ত পছন্দ করে থাকেন। তবে কোন আর্টিফিশিয়াল ফুল নয় তাজা ফুল। এই ক্ষেত্রে ফুলদানিতে জল দিয়ে ফুল সাজানোর সময় আপনারা যদি সেই জলের মধ্যে একটু লবণ দিয়ে দিতে পারেন তাহলে কিন্তু বেশ কিছুদিন সেই ফুলগুলিকে তাজা অবস্থায় আপনারা রাখতে পারবেন। নয়তো দেখবেন সেগুলি কিন্তু ২ থেকে ৩ দিনের মধ্যেই সম্পূর্ণরূপে শুকিয়ে যায়।

৬) বাড়িতে অনেক সময় যে সমস্ত শোপিস সাজানো থাকে সেগুলি কিন্তু ধুলোবালি পড়ে কালচে প্রকৃতির হয়ে গিয়ে থাকে। এগুলি পরিষ্কার করার জন্য আপনারা টুথপেস্ট ব্যবহার করতে পারেন। টুথপেস্ট শেষ হওয়ার পর দেখবেন টিউবের মধ্যে গায়ে অনেক টাই টুথপেস্ট লেগে থাকে। টিউব টিকে কেটে নিয়ে কিন্তু আপনারা এই টুথপেস্ট ব্যবহার করে খুব সহজেই শোপিস গুলির গা পরিষ্কার করে এগুলিকে চকচকে করে তুলতে পারেন।

৭) কোথাও ঘুরতে গেলে কিন্তু আমরা বাড়িতে সাজানোর জন্য নানান ধরনের ওয়াল হ্যাংগিং কিনে থাকি। কিন্তু অল্প কয়েক দিনের মধ্যেই দেখা যায় ধুলোবালি পড়ে এগুলো কালচে বর্ণের হয়ে গিয়েছে। আপনারা খুব সহজেই টমেটো সস ব্যবহার করে এগুলিকে পরিষ্কার করে নিতে পারেন। বাজারে যে এক টাকার দামের কিষান সস পাওয়া যায় সেটি কিনে নিয়ে এসে ভালো করে এই ওয়াল হ্যাংগিং গুলির গায়ে মাখিয়ে হালকা করে ব্রাশ দিয়ে ঘষে জল দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। দেখবেন এগুলি একেবারে নতুনের মতন চকচকে হয়ে গিয়েছে।

Back to top button