কোনোরকম ঝামেলা ছাড়াই একদম দোকানের মতো খুব সহজেই ঘরেই বানিয়ে নিন লাল লঙ্কার গুঁড়ো!

নিজস্ব প্রতিবেদন:- নিরামিষ রেসিপি হোক বা আমিষ সমস্ত ধরনের রান্নার ক্ষেত্রেই কিন্তু লঙ্কার গুড়োর ব্যবহার করা হয়ে থাকে। বাজারের বিভিন্ন দোকানে আপনারা নানান ধরনের মূল্যের লঙ্কার গুঁড়ো সহজেই কিনতে পেয়ে যাবেন। কিন্তু বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই দেখা যায় সেই সমস্ত লঙ্কার গুঁড়ো ব্যবহার করার ফলে রান্নাতে না লাল হয়, না ঝাল হয়। তাই এবার থেকে আপনারা আর বাজারের লঙ্কার গুঁড়ো না কিনে কিন্তু সহজেই বাড়িতে কয়েকটি বিশেষ পদ্ধতির সাহায্যে লঙ্কার গুঁড়ো তৈরি করে নিতে পারেন। আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনে আমরা লঙ্কার গুঁড়ো তৈরির বিশেষ দুটি পদ্ধতি সম্পর্কে আপনাদের সাথে আলোচনা করে নেব। তাহলে চলুন আর দেরি না করে আমাদের আজকের এই প্রতিবেদনটি শুরু করা যাক।

লঙ্কার গুঁড়ো তৈরি করার বিশেষ দুটি পদ্ধতি:

 প্রথম পদ্ধতি:

প্রথম পদ্ধতিতে লঙ্কার গুঁড়ো তৈরি করার জন্য আপনাদের এক কিলো পরিমাণ গোটা শুকনো লঙ্কা নিয়ে আসতে হবে। যদি আপনারা কেউ শুকনো লঙ্কার পরিমাণ কম ভেবে থাকেন তাহলে জানিয়ে রাখি, এর থেকে যা পাউডার তৈরি হবে তা প্রায় ছয় মাস পর্যন্ত বিভিন্ন রান্নায় আপনারা ব্যবহার করে নিতে পারবেন। এই সম্পূর্ণ শুকনো লঙ্কা গুলিকে আপনাদের ৬ ঘন্টা সময় পর্যন্ত কড়া রোদে রেখে দিতে হবে। যদি আপনারা এর থেকে বেশি সময় লঙ্কা রাখতে পারেন তাহলে কিন্তু আরো ভালো। যতটা বেশি সময় পর্যন্ত এই লঙ্কাগুলি রোদের মধ্যে থাকবে ঠিক ততটাই কিন্তু এগুলি মুচমুচে হয়ে উঠবে।এবার এর বোটা গুলো আলাদা করে ফেলে দিন।

বোটা ছাড়ানো হয়ে গেলে লঙ্কা গুলো একটি বড় বাটিতে রাখুন। এবার ব্লেন্ডারে অল্প অল্প করে দিয়ে মিহি পাউডার বানিয়ে নিন। যদি আপনার কাছে এত সময় না থাকে সে ক্ষেত্রে কিন্তু আপনারা বিকল্প ব্যবস্থাও অবশ্যই ট্রাই করে দেখতে পারেন।

এগুলিকে প্যাকেটে করে যে কোন আটা ভাঙ্গার দোকানে দিয়ে আসতে পারেন। ১৫ থেকে ২০ টাকা নেবে। লঙ্কা গুঁড়ো করে আপনাকে ৫ মিনিটের মধ্যে দিয়ে দেবে। তবে হ্যাঁ দোকানে দিলে কিন্তু আপনাদের একটু আলাদাভাবে খাটনি হবে এবং পদ্ধতি সম্পূর্ণ ঘরোয়া না হয়ে অর্ধেক ঘরোয়া হয়ে যাবে। হাতে সময় থাকলে তাই অবশ্যই বাড়িতে লঙ্কা গুঁড়ো করে নেওয়ার চেষ্টা করবেন।

দ্বিতীয় পদ্ধতি:

দ্বিতীয় পদ্ধতিতেও কিন্তু আপনারা অল্প সময়ের মধ্যেই সহজে বাড়িতে লঙ্কার গুঁড়ো তৈরি করে নিতে পারবেন। তবে পুরো কাজটাই কিন্তু আপনাকে নিজের হাতেই করতে হবে। এই পদ্ধতিতে প্রথমেই আপনাদের একটি বড় লোহার কড়াই নিয়ে নিতে হবে। তারপর সেটাকে হালকা গরম করে গ্যাস অফ করে দিন। এবার এই গরম কড়াই এর মধ্যে পর্যাপ্ত পরিমাণে শুকনো লঙ্কা নিয়ে ৩০ সেকেন্ড পর্যন্ত ভালোভাবে নাড়াচাড়া করতে থাকুন। অবশ্যই কিন্তু শুকনো লঙ্কাগুলির বোটা ছাড়িয়ে নিতে ভুলবেন না। কিছুক্ষণ নাড়াচাড়া করে নেওয়ার পর লঙ্কাগুলিকে
গ্যাস জালিয়ে কড়াই গরম করে অফ করুন।

পুনরায় ৩০ সেকেন্ডের জন্য লঙ্কা গুলো দিয়ে নেড়ে তুলে নিন। এভাবে যতক্ষণ না লঙ্কা মচমচ হচ্ছে করে যেতে থাকুন। অনেকেই কিন্তু এই পদ্ধতিতে একেবারে লঙ্কার গুঁড়ো রোস্ট করে নেওয়া বা সেঁকে নেওয়ার কথা ভেবে থাকেন। তবে এই কাজটি কিন্তু আপনারা একেবারেই করা থেকে বিরত থাকুন। যদি আপনারা একেবারে লঙ্কাগুলিকে রোস্ট করে গুঁড়ো তৈরি করার কথা ভাবেন সেক্ষেত্রে কিন্তু এগুলি মেরুন রংয়ের হয়ে যেতে পারে।

প্রত্যেকবার এটা করার সময় খেয়াল রাখবেন কড়াই যেন সামান্য গরম হয়। তাহলে লঙ্কার রঙ পরিবর্তন হবে না।লঙ্কা মচমচ হয়ে গেলে ব্লেন্ডারে দিয়ে মিহি পাউডার বানিয়ে নিন। একটা পরিষ্কার ঝাঁজরি দিয়ে বোতলে ভরুন। যদি দেখেন লঙ্কার গুড়োর কোন অংশ দানাদার অবস্থায় রয়ে গিয়েছে তাহলে কিন্তু আবারো এটাকে ভালোভাবে ব্লেন্ডারে ব্লেন্ড করে নিতে ভুলবেন না।

ব্যাস তৈরি হয়ে গেল দ্বিতীয় পদ্ধতিতে আপনাদের লঙ্কার গুড়ো। এভাবে বাড়িতে কিন্তু বিশেষ কিছু পদ্ধতি অবলম্বন করে শুধুমাত্র লঙ্কার গুঁড়ো নয় আপনারা আদা অথবা রসুনের পাউডার ও সহজেই তৈরি করে নিতে পারবেন। লঙ্কার গুড়োর মতন এই প্রত্যেকটা জিনিসও কিন্তু বহুল পরিমাণে বিভিন্ন রান্নার কাজে ব্যবহার করা হয়ে থাকে।

Leave a Comment