রান্নার কাজ কমিয়ে আনতে এই সহজ ঘরোয়া পদ্ধতিতে বাড়িতেই বানিয়ে ফেলুন অনিয়ন পাউডার

নিজস্ব প্রতিবেদন: আজকাল চটজলদি রান্না করার জন্য কিন্তু নানান রকমের মসলা খুব সহজেই বাজারে কিনতে পাওয়া যায়। তবে বাজার থেকে যে সমস্ত মসলা কিনে নিয়ে আসা হয় তাতে কিন্তু একেবারে পারফেক্ট স্বাদ থাকে না। তারপর ধরুন রান্নায় পেঁয়াজ ব্যবহার নিয়েও কিন্তু আপনাদের  অনেক সমস্যায় পড়তে হয়।। পেঁয়াজ কাটা থেকে শুরু করে বেটে নেওয়া সবকিছুই বেশ ঝামেলার এবং সময় সাপেক্ষ। আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনে আমরা আপনাদের এই সময় বাঁচানোর জন্যই বিশেষ একটি পদ্ধতি আলোচনা করতে চলেছি।

এতে করে আপনারা খুব সহজেই বাড়িতে তৈরি করে ফেলতে পারবেন অনিয়ন পাউডার। এই পাউডার রান্নায় ব্যবহার করলে কিন্তু আর কোনরকম অসুবিধা থাকবে না। চলুন তাহলে আর সময় নষ্ট না করে এবারে প্রতিবেদনের মূল পর্বে যাওয়া যাক। মোটামুটি এক কিলো পেঁয়াজ ব্যবহার করে কিন্তু আপনারা বাড়িতেই অনিয়ন পাউডার তৈরি করে নিতে পারেন।

অনিয়ন পাউডার ঘরে তৈরি করার পদ্ধতি:

অনিয়ন পাউডার কিন্তু বাড়িতে অনেক রকম ভাবেই তৈরি করা যেতে পারে। ডিহাইড্রেটর, ওভেন দিয়ে পেঁয়াজ শুকিয়ে বা ড্রাই করে বানানো যায়। এতে করলে কয়েক ঘণ্টার মধ্যে তৈরি হয়ে যায়। আবার চাইলে আপনারা এটাকে রোদে শুকিয়েও তৈরি করে নিতে পারেন। রোদে শুকিয়ে অনিয়ন পাউডার তৈরি করলে আপনারা এটা মোটামুটি এক বছর এবং অন্যদিকে ডিহাইড্রেটর অথবা ওভেন দিয়ে অনিয়ন পাউডার তৈরি করলে তা আপনারা ছয় মাস পর্যন্ত সংরক্ষণ করতে পারবেন।

১. রোদে শুকিয়ে অনিয়ন পাউডার বানানোর পদ্ধতি:

এই পদ্ধতিতে অনিয়ন পাউডার তৈরি করার জন্য প্রথমেই আপনাদেরকে এক কিলো পেঁয়াজ নিয়ে নিতে হবে। তারপর এটাকে একেবারে পাতলা করে কেটে নিন। বড় দুটি থালার মধ্যে এই পেঁয়াজকে আপনাদের ছড়িয়ে দিতে হবে। এরপর কড়া রোদে রেখে এটাকে বেশ কয়েকদিন শুকিয়ে নিন। যদি রোদ কম থাকে সেক্ষেত্রে কিন্তু আরো বেশ কয়েকদিন সময় লাগবে পারে শুকানোর জন্য। পেঁয়াজ ভালো করে শুকিয়ে গেলে সেটাকে মিক্সার গ্রাইন্ডারে ভালো করে গুঁড়ো করে নিতে হবে। ব্যাস তাহলেই তৈরি হয়ে গেল অনিয়ন পাউডার। যেকোনো কাঁচের জারে এটাকে আপনারা ভালোভাবে সংরক্ষণ করে রাখতে পারেন।

২. ডিহাইড্রেটরে অনিয়ন পাউডার বানানোর পদ্ধতি:

এই পদ্ধতিতে প্রথমে ভালো করে পেঁয়াজ কেটে নিন সরু করে। তারপর ডিহাইড্রেটর ট্রের উপর পাতলা করে কাটা পেঁয়াজ একটি একক স্তরে রাখুন, যাতে সেগুলি ওভারল্যাপ না হয় । উচ্চ আর্দ্রতা থাকলে ১৫০ºF/৬৬ºC তাপমাত্রায় ৬-৮ ঘন্টা এবং যদি কম আদ্রতা থাকে সেক্ষেত্রে ৪-৫ ঘন্টা ডিহাইড্রেট করে নিন। যতক্ষণ পর্যন্ত না সম্পূর্ণ শুকিয়ে যাচ্ছে এই অবস্থায় রেখে দিন। এটি পারফেক্ট ভাবে তৈরি হয়েছে কিনা বোঝার জন্য পেঁয়াজগুলিকে বের করে দেখে নেবেন মড়মড় করে ভেঙে যাচ্ছে নাকি! এভাবে ভেঙে গেলে বুঝবেন এগুলো একেবারে সঠিকভাবে তৈরি হয়েছে। ব্যাস এরপর গুঁড়ো করে নিলেই তৈরি হয়ে যাবে অনিয়ন পাউডার। যদি দেখেন এগুলো নরম রয়েছে সেক্ষেত্রে আরো কিছুক্ষণ ডিহাইড্রেটরে রেখে দিন।

অনিয়ন পাউডার সংরক্ষণ করার উপায়:

১) আপনারা চাইলে অনিয়ন পাউডার একটি কাঁচের জার বা এয়ারটাইট কন্টেইনারে সংরক্ষণ করে রাখতে পারেন। তবে এর জন্য আপনাদের জার বা কনটেইনারটিকে একটি শীতল আর শুষ্ক স্থানে রাখতে হবে। রান্নাঘরের আলমারি এর জন্য একটি আদর্শ জায়গা হতে পারে।

২) পাউডার তৈরি হয়ে যাওয়ার পরেও কিন্তু অনেক সময় দলা পাকিয়ে থাকে। এতে এটা তাড়াতাড়ি নষ্ট হয়ে যাওয়ার ভয় থাকে। সুতরাং,পাউডার বানানোর পর প্রথম কয়েক দিন বয়ামগুলিকে ঝাঁকাবেন। এতে কোনরকম দলা তৈরি হয়ে থাকলে সেটা ভেঙে যাবে।

৩) অনিয়ন পাউডার যাতে কোনরকম ভাবেই নষ্ট না হয়ে যায় সে ক্ষেত্রে আপনারা আরও একটি পদ্ধতি প্রয়োগ করতে পারেন। যে বয়ামে আপনারা এই পাউডার সংরক্ষণ করে রেখেছেন, সেটাতে রান্না না করা কয়েকটি চাল রেখে নিন যাতে পাউডারের আদ্রতা শুষে নেয়।

Back to top button