বাড়িতে ঘরোয়া সহজ পদ্ধতিতে বানিয়ে ফেলুন কুমরো পাতা বাটা রেসিপি, রইলো পদ্ধতি

নিজস্ব প্রতিবেদন: আমাদের দেশের গ্রামাঞ্চলে কিন্তু এমন অনেক খাবার রয়েছে যা হয়ত আধুনিকতার ছোঁয়ায় হারিয়ে গিয়েছে। সময়ের সাথে সাথে নামিদামি রেস্টুরেন্টের খাবারের ভিড়ে এই সমস্ত খাবার কিন্তু এখন আর বেশিরভাগ মানুষই খান না। তবে এমন অনেক রেসিপি রয়েছে যা খুব সহজেই আপনার খাবারের অরুচি দূর করে দিতে পারে বা খাবারের প্রতি একঘেয়েমি দূর করতে আপনাকে সাহায্য করতে পারে।

আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনে আমরা এরকমই একটি বিশেষ রেসিপি নিয়ে আপনাদের সাথে আলোচনা করতে চলেছি। এটি হল কুমড়ো পাতা বাটার রেসিপি। চলুন তাহলে আর দেরি না করে আজকের এই বিশেষ রেসিপি শুরু করা যাক। স্টেপ বাই স্টেপ যদি আপনারা এই রেসিপিটি তৈরি করে নিতে পারেন তাহলে কিন্তু এক থালা ভাত শেষ করার জন্য আপনার আর মাছ-মাংসের প্রয়োজন হবে না।

  • কুমড়ো পাতা বাটার রেসিপি:

এই ভর্তা তৈরি করার জন্য আপনাদের টাটকা কুমড়ো পাতা নিয়ে ভালো করে ছাড়িয়ে নিতে হবে। খেয়াল রাখবেন কুমড়ো পাতাগুলি যেন কচি প্রকৃতির হয়। তাহলে কিন্তু ভর্তা খেতে খুবই ভালো লাগবে। এরপর আপনাদের পাতাগুলিকে কুচিকুচি করে কেটে নিতে হবে। তারপর ঠান্ডা জল দিয়ে ভালো করে পাতাগুলিকে আপনারা ধুয়ে ফেলুন। এবার একটি ঝুড়ির উপরে রেখে মোটামুটি যতটা সম্ভব জল আপনাদের ঝরিয়ে নিতে হবে। এবার গ্যাস ওভেনে একটি করায় বসিয়ে তাতে সামান্য পরিমাণ অর্থাৎ 1 থেকে 2 টেবিল চামচ সরষের তেল দিয়ে দিন। এরপর ওই তেলের মধ্যে তিন থেকে চারটি শুকনো লঙ্কা নিয়ে ভালো করে নাড়াচাড়া করতে থাকুন।

ভাজা হয়ে গেলে শুকনো লঙ্কাগুলিকে একটি আলাদা পাত্রে তুলে রেখে দিন।এবার ওই তেলের মধ্যেই আপনাদের দিয়ে দিতে হবে এক চা চামচ কালোজিরা এবং হাফ চা চামচ চিনি। তারপরে হালকা নাড়াচাড়া করে এতে 10 থেকে 12 কোয়া রসুন আর একটা ছোট পেঁয়াজ কুঁচিয়ে দিয়ে দিন। সামান্য পরিমাণ হলুদ গুঁড়ো আর স্বাদ অনুযায়ী লবণ দিয়ে এবারে আপনারা ভালো করে এটাকে নাড়াচাড়া করতে থাকুন।

এবার আপনাদের সোজাসুজি কুমড়ো পাতাগুলিকে তেলের মধ্যে দিয়ে কষিয়ে নিতে হবে। তাহলে কিন্তু এর স্বাদ সেদ্ধ করা স্বাদের থেকে অনেক বেশি রকমের ভালো হবে। কিছুক্ষণ নাড়াচাড়া করার পরে তিন থেকে চার মিনিট সময় পর্যন্ত আপনাদের ভালো করে ঢাকনা চাপা দিয়ে শাকগুলিকে সেদ্ধ করে নিতে হবে। তবে যতক্ষণ পর্যন্ত না এর মধ্যে থেকে জলীয় ভাব চলে যায় ততক্ষণ আপনাদের এটাকে ভেজে নিতে হবে।

মোটামুটি ঝুরঝুরে করে ভালো করে এই কুমড়ো পাতাগুলিকে ভেজে নেওয়ার পরে কিছুক্ষণের জন্য এটাকে ঠান্ডা হতে দিতে হবে। ঠান্ডা হয়ে গেলে এগুলিকে আপনাদের একটি মিক্সিং জারের মধ্যে নিয়ে নিতে হবে। তারপর এর মধ্যে আগে থেকে ভেজে রাখা শুকনো লঙ্কা দিয়ে দিন।

এবার খুব ভালো করে এটাকে আপনাদের একটি মিহি পেস্ট তৈরি করে নিতে হবে। পেস্ট করা হয়ে গেলেই কিন্তু তৈরি হয়ে গেল কুমড়ো পাতার ভর্তা। খুব সহজেই এবার আপনারা এটাকে গরম ভাতের সাথে পরিবেশন করতে পারেন। অসাধারণ এই রেসিপিটি আপনাদের খেতে কেমন লাগলো তা অবশ্যই জানাতে ভুলবেন না।

Back to top button