এই ভাবে বানিয়ে নিন ভিন্ন স্বাদের ইউনিক লুচির রেসিপি, খেতে হবে দারুন সুস্বাদু, একবার খেলে খেতে চাইবেন বার বার!

নিজস্ব প্রতিবেদন :- লুচি খেতে কম বেশি আমরা সকলেই ভালবাসি। বিভিন্ন ধরনের জিনিস যেমন সুজি, চিরে ইত্যাদি ব্যবহার করে লুচি তৈরি করা যায়। তবে আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনে আমরা যেভাবে লুচি তৈরির রেসিপি আলোচনা করব তা খুব সহজেই আপনাদের মন জয় করে নেবে। আপনারা যদি বাড়িতে এরকম ভাবে লুচি তৈরি করেন তাহলে কিন্তু আর লুচির সাথে অন্য কোন খাবার বানানোর প্রয়োজন হবে না। তাহলে চলুন আর দেরি না করে লুচি তৈরীর এই বিশেষ পদ্ধতিটি জেনে নেওয়া যাক।

  • ইউনিক পদ্ধতিতে লুচি তৈরি:

১) অভিনব পদ্ধতিতে লুচি তৈরির জন্য আপনাদের প্রথমে একটি পাত্রের মধ্যে পরিমাণ মতো ময়দা নিয়ে তা ভালো করে মেখে নিতে হবে। মাখার জন্য আপনারা দুধ ব্যবহার করতে পারেন আবার জলও ব্যবহার করে নিতে পারেন।

এরপর ময়দা মেখে নেবার পর আপনারা ছোট ছোট করে লেচি কেটে নিন।

২) এবার আপনাকে লেচির মধ্যবর্তী অংশ কিছুটা ফাঁক করে নিতে হবে যাতে এখানে আপনারা পুর ভরতে পারেন। চাইলে আপনারা কিন্তু এই পুর তৈরি করে নিতে পারেন আবার দোকান থেকে কিনেও নিয়ে আসতে পারেন। এটি হলো সন্দেশ কিংবা ছানার পুর। এই পুর ভরার জন্য প্রথমেই আপনাদের লেচির মধ্যে একটি পকেটের মতন তৈরি করে নিতে হবে।

৩) তারপর যেভাবে আপনারা পিঠে তৈরি করেন হুবহু সেভাবেই পুর লেচির মধ্যে ভরে নিয়ে গায়ে ময়দা মাখিয়ে আপনাদের লুচি গুলিকে বেলে নিতে হবে।

এরপর আপনাদের কড়াইতে তেল গরম করে নিয়ে তার মধ্যে লুচি গুলিকে দিয়ে দিতে হবে। কিছুক্ষণের মধ্যেই দেখবেন অত্যন্ত সুন্দরভাবে লুচি গুলি একেবারে ধীরে ধীরে ফুলে উঠছে।

৪) তেল যদি ভালোভাবে গরম থাকে অবশ্যই কিন্তু ভেতরে পুর থাকা সত্ত্বেও লুচি গুলি খুব সুন্দরভাবে ফুলে উঠবে। লুচি ভাজার আগে আপনারা অবশ্যই দেখে নেবেন তেল ভালোভাবে গরম হয়েছে কিনা। লুচি তৈরির সময় অনেকেই এই ছোটখাটো বিষয়ের উপর নজর দেন না বলে লুচি কিন্তু সঠিকভাবে তৈরি হয়ে ওঠে না।

৫) লুচি ভেজে নেওয়ার পর একটি পাত্রের মধ্যে আপনাকে হাফ লিটার পরিমাণ দুধ নিয়ে নিতে হবে। এরপর দুধ কিছুটা গরম হওয়ার পর এতে আপনাদের তিন চামচ পরিমাণ মিল্ক পাউডার মিশিয়ে দিতে হবে। লিকুইড দুধের মধ্যে কিছুটা গুঁড়ো দুধ দিলে কিন্তু দুধ খুব তাড়াতাড়ি ঘন হয়ে যায়।

যতক্ষণ পর্যন্ত না দুধ ফুটে উঠছে ততক্ষণ পর্যন্ত অপেক্ষা করতে থাকুন। একেবারে ঘন হয়ে এলে এই দুধের মধ্যে আপনারা কিছুটা পরিমান চিনি আর কাজুবাদাম কুচি দিয়ে নাড়াচাড়া করতে থাকুন।

এরপর আরো মিনিট খানেক সময় দুধ ফুটিয়ে নিয়ে এতে এলাচের গুঁড়ো দিয়ে দিন। এলাচের গুড়ো ব্যবহার করলে কিন্তু একটা খুব সুন্দর টেস্ট চলে আসবে।

৬) দুধ কিছুটা ঠান্ডা হয়ে এলে এর মধ্যে আপনারা আগে থেকে ভেজে রাখা লুচি গুলিকে ডুবিয়ে দিন ভালো করে।

এভাবে কিছুক্ষণ ভিজিয়ে রাখার পরে কিন্তু লুচি গুলি দুধ টেনে নেবে এবং আপনাদের ক্ষীরের লুচি সহজেই তৈরি হয়ে যাবে।

কোনরকম তড়ি-তরকারি ছাড়াই আপনারা এই লুচি শিশু থেকে বয়স্ক সকলকে পরিবেশন করতে পারেন। বাড়িতে আপনারা যদি একবার এই লুচি তৈরি করেন তাহলে কিন্তু বারবার বানিয়ে খেতে ইচ্ছে করবে।

Back to top button