জানেন হোটেলের বালিশ আর চাদর সবসময় সাদা হয় কেন? অধিকাংশ মানুষেরই অজানা

নিজস্ব প্রতিবেদন: কোথাও ঘুরতে গেলে বা বাইরে কোথাও অবস্থান করলে অনেকেই কিন্তু থাকার জায়গা হিসেবে হোটেলকে বেছে নিয়ে থাকেন। কমবেশি সকলকেই কিন্তু এই অবস্থার মধ্যে দিয়ে যেতে হয়েছে। আপনারা হয়তো এই দুটি লাইন পড়ার পর ভাবছেন যে কেন আজ হঠাৎ হোটেল নিয়ে আলোচনা করতে চলেছি! আসলে যে কোন হোটেলে গেলেই আপনারা একটা জিনিস লক্ষ্য করে দেখবেন যে,হোটেলের বিছানার চাদর এবং বালিশের ওয়ার সব সময়ই সাদা। কিন্তু কখনও মনে প্রশ্ন জেগেছে কি, এ রকম কেন করা হয়? এর পেছনে কিন্তু বিশেষ কারণ রয়েছে যা আপনাদের সকলেরই হয়তো অজানা। আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনে আমরা তা নিয়েই বিস্তারিত আলোচনা করতে চলেছি।

প্রথমেই জানিয়ে রাখি, ১৯৯০ এর দশকে প্রথম হোটেলের পক্ষে অর্থাৎ রুমগুলিতে সাদা রংয়ের ব্যবহার শুরু করা হয়ে থাকে। এরপর এই বিষয়টিকে জনপ্রিয় করে তোলেন ওয়েস্টিন ও শেরাটন। দুই হোটেলের ভাইস প্রেসিডেন্ট অব ডিজাইন এরিন হুভার মনে করেন, সাদা বিছানা অতিথিদের মাঝে ভ্রম সৃষ্টি করে। সাদা রং যেহেতু অত্যন্ত স্নিগ্ধ আর শুভ্র প্রকৃতির হয়ে থাকে তাই হোটেলের রুমে থাকতে আসা মানুষ মনে করেন রুমটি খুব সুন্দরভাবে পরিষ্কার আর গুছিয়ে রাখা হয়েছে।। স্বাভাবিকভাবেই এই ব্যাপারটি গ্রাহকদের মনে অত্যন্ত বড় প্রভাব ফেলে বলে মনে করা হয়। পাশাপাশি, আলোর নিয়ম অনুসারে, সাদা রং আলোর প্রতিফলন ঘটায়। এতে রুম আরও উজ্জ্বল দেখায়।

যদিও বহু ব্যাক্তি রয়েছেন যারা সাদা রংকে বিলাসিতার প্রতীক বলে মনে করে থাকেন। এবার বিলাসিতা নিজের জীবনে কে না চায় বলুন? তাই হোটেলের চাদর বা বালিশের কভারে সাদা রঙের ব্যবহারটাই বেশি করা হয়ে থাকে। এর পেছনে দ্বিতীয় আরেকটি কারণ রয়েছে। সাদা চাদর-বালিশ একটু নোংরা হলে তা একসঙ্গে ভিজিয়ে তা ধোয়া যায়। অন্য রঙের হলে একটা থেকে অন্যটায় রং লেগে যাওয়ার শঙ্কা থাকে। যেহেতু হোটেলের চাদর বা বালিশ একটু ময়লা হলেই ধুতে হয় তাই আরও বিশেষ করে এই ব্যবস্থা। আসুন এই প্রসঙ্গে ইন্ডিয়ান ইনস্টিটিউট অব হোটেল ম্যানেজমেন্ট (আইআইএইচএম) কলকাতা’র ‘হাউস কিপিং’- এর অধ্যাপক তরুণ সরকারের মতামত জেনে নেওয়া যাক।

তিনি জানিয়েছেন, “নয়ের দশকের শুরুতে ওয়েস্টিন হোটেল গ্রুপ তাদের হোটেলের ঘরগুলোতে সাদা বালিশ-চাদর-তোয়ালের ব্যাপক ব্যবহার শুরু করে। ১৯৭০-’৮০ সালেও ইউরোপ এবং আমেরিকার বেশ কয়েকটি নামী হোটেলে সাদা চাদর-বালিশ ব্যবহারের চল ছিল। তবে ১৯৯০-এর গোড়ায় ওয়েস্টিন এবং শেরাটন হোটেলের ডিজাইন বিভাগের ভাইস প্রেসিডেন্ট এরিন হুভার-ই ওয়েস্টিন হোটেল গ্রুপের ঘরগুলোতে সাদা চাদর-বালিশ ব্যবহারের পরামর্শ দেন”। আশা করি আমাদের আজকের এই প্রতিবেদনটি পড়ার পর আর কখনো আপনাদের মনে হোটেলের চাদর বা বালিশের সাদা রং নিয়ে কোন প্রশ্ন আসবে না। এই ধরনের আরো বিস্তারিত তথ্য জানতে হলে আমাদের পোর্টালের অন্যান্য প্রতিবেদন গুলির উপর নজর রাখতে পারেন।

Back to top button