নিজের অফিসে ডেকে দিয়েছিলেন অশ্লীল ইঙ্গিত! পরিচালক অরিন্দম শীলের গোপন কেচ্ছা ফাঁস করলেন অভিনেত্রী রূপাঞ্জনা!

নিজস্ব প্রতিবেদন:- খলনায়িকা থেকে শুরু করে স্নেহময়ী শাশুড়ি সব চরিত্রে কিন্তু দাপটের সঙ্গে অভিনয় চালিয়েছেন রূপাঞ্জনা মৈত্র। অসাধারণ অভিনয় দক্ষতা দিয়ে অল্প সময়েই দর্শকদের মন জয় করে নিয়েছেন তিনি। বর্তমানে ‘অনুরাগের ছোঁয়া’ ধারাবাহীকে লাবণ্য সেনগুপ্ত অর্থাৎ দীপার শাশুড়ির ভূমিকায় অভিনয় করছেন রুপাঞ্জনা। এই ধারাবাহিকে তার অভিনয়কে টেক্কা দেবে এরকম নায়িকা হয়তো বর্তমানে ইন্ডাস্ট্রিতে খুব কমই রয়েছে। বলা হয় রূপাঞ্জনা যখন যে কোন চরিত্রে অভিনয় করেন সেই চরিত্রের প্রতিটা দিক এত সুন্দর ভাবে ফুটিয়ে তোলেন যে আর অন্য কোন প্রশ্ন করতেই হয় না।

এ কথা যে একেবারে মিথ্যে নয় তা আমরা অনুরাগের ছোঁয়া ধারাবাহিকটি নিয়মিত দেখলেই কিন্তু বুঝতে পারব। এরই মাঝে সম্প্রতি কিছুদিন আগে এক ব্যক্তিগত সাক্ষাৎকারে অনেক বিষয় নিয়ে মুখ খুলেছিলেন তিনি। এর আগেও কিন্তু একবার সাক্ষাৎকার ছাড়াই সংবাদ শিরোনামে এসেছিলেন এই নায়িকা। পরিচালক অরিন্দম শীলের বিরুদ্ধে কাস্টিং কাউচের অভিযোগ নিয়ে মুখ খুলেছিলেন রূপাঞ্জনা মৈত্র। সরাসরিই বলেছিলেন পরিচালক নাকি তার দুর্ব্যবহার করেন। কয়েক বছর আগে পরিচালক নিজেই তাকে কলকাতার অফিসে ডেকে পাঠিয়েছিলেন। ‘ভূমিকন্যা’ সিনেমার স্ক্রিপ্ট শুনতে তিনি পৌঁছে যান পরিচালকের অফিসে।

তবে সেখানে গিয়ে ভয়ঙ্কর অভিজ্ঞতা হয়েছিল রূপাঞ্জনার। অভিনেত্রী অরিন্দমের অফিসে গিয়ে দেখেন সেখানে আর কেউ ছিলেন না। এই সময় পরিচালক নাকি তাকে দেখে নানান রকমের অশ্লীল অঙ্গভঙ্গি করতে থাকেন। এই ব্যাপারটি মোটেও মেনে নিতে পারেননি অভিনেত্রী। তারপর যখন এই বক্তব্য তিনি সকলের সামনে নিয়ে এসেছিলেন তখন রীতিমতো একটা উত্তাল পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছিল ইন্ডাস্ট্রিতে।

যদিও বিতর্ক রূপাঞ্জনার জীবনে কোন নতুন বিষয় নয় বলাই যায়। তবে তার জীবনে কিন্তু অনেক বিশেষ দিকের কথাও আমরা উল্লেখ করতে পারি। ২০১৭ সালে বিবাহ বিচ্ছেদের পর সিঙ্গেল মাদার হিসেবে তিনি তার ৮ বছরের ছেলের প্রতি দায়িত্ব পালন করছেন।

কিন্তু আপনারা জানলে অবাক হবেন সিঙ্গেল মাদার হলেও নিজের জীবনে কিন্তু তিনি মোটেও সিঙ্গেল নন। বয়সে ছোট এক প্রেমিকের সঙ্গে জমিয়ে প্রেম করছেন রূপাঞ্জনা মৈত্র। ইনি হলেন অভিনেতা তথা পরিচালক রাতুল মুখার্জি। রাতুলের সঙ্গে তার বয়সের বিস্তর ফারাক রয়েছে। স্টুডিও বাড়াতে প্রায় সময় এই দম্পতিকে নিয়ে চর্চা হতে দেখা যায়।

যদিও কোন রকমের সমালোচনাকে একেবারেই পাত্তা দিতে নারাজ রুপাঞ্জনা। জানিয়ে রাখি, রূপাঞ্জনা কিন্তু প্রথম বিবাহ করেছিলেন সাত বছরের ছোট এক অভিনেতাকে। তাকে ডিভোর্স দিয়ে রাতুলের সঙ্গেই সুখী ‘দীপার শাশুড়ি লাবণ্য’।

যদিও এই সম্পর্কের কথা খোলামেলা ভাবে স্বীকার করে নেননি তিনি। তবে আমরা আশা করতেই পারি খুব শীঘ্রই রূপাঞ্জনা আর রাতুলের সম্পর্ক হয়তো পরিণতি পাবে।

Back to top button