২ দিনের মধ্যেই বাড়ি থেকে পালাবে সমস্ত আরশোলা, জেনে নিন দারুন এই ট্রিকস

নিজস্ব প্রতিবেদন:যেকোনো বাড়িতেই নানান ধরনের কীটপতঙ্গ এবং পোকামাকড়েরা নানান ধরনের সমস্যার সৃষ্টি করে। বিভিন্ন রাসায়নিক দিয়ে এগুলিকে তাড়ানোর চেষ্টা করা হয়। কিন্তু অনেক ক্ষেত্রেই তা সঠিকভাবে কাজ করে না।

তাই আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনে আমরা আরশোলা এবং অন্যান্য কীটপতঙ্গ তাড়ানোর একটি সম্পূর্ণ ঘরোয়া উপায় নিয়ে আলোচনা করতে চলেছি।রান্নাঘর, বাথরুম বা বারান্দার নানা কোণে আরশোলার উপস্থিতি দেখতে পাওয়া যায়। আরশোলা মূলত বর্জ্য-আবর্জনায় থাকে। তাই জীবাণু বয়ে বেড়াতে ওস্তাদ।

প্রসঙ্গত আরশোলা জাতীয় কীটপতঙ্গ দূর করার ক্ষেত্রে তেজপাতার ভূমিকা বিশেষভাবে গুরুত্বপূর্ণ।সপ্তাহে কয়েক দিন তেজপাতার গুঁড়ো ছড়িয়ে দিন ঘরের আনাচে কানাচে, এর গন্ধ আরশোলা সহ্য করতে পারে না। এছাড়াও আরশোলা তাড়ানোর ক্ষেত্রে আপনারা বেকিং সোডা ব্যবহার করতে পারেন।

বেকিং সোডার সাথে মিষ্টি বা চিনি মিশিয়ে সারাঘরে ছড়িয়ে দিতে পারেন। বেকিং সোডার গন্ধেই আরশোলা মারা যাবে। এছাড়াও আপনারা ব্যবহার করতে পারেন বোরিক পাউডার।

বোরিক পাউডারের সঙ্গে আটা বা ময়দার গুঁড়ো মিশিয়ে ছড়িয়ে দিন ঘরের চারপাশে। মারা পড়বে আরশোলা। ঘর মোছার জলে কয়েক ফোঁটা লেবুর রস দিয়ে ঘর মুছুন, আপনার ঘর হবে পোকামাকড়মুক্ত। আরশোলা তাড়াতেও একই টোটকা ব্যবহার করতে পারেন।

তৃতীয় পদ্ধতি হিসেবে আমরা বলব গোলমরিচ, রসুন আর পেঁয়াজের কথা। তিনটি দ্রব্য একসাথে মিশিয়ে তার মধ্যে কয়েক ফোঁটা লেবুর রস ঢেলে দিয়ে তা দিয়ে ঘর মুছতে পারেন। এতে খুব সহজেই আপনার ঘর কীটপতঙ্গ মুক্ত হয়ে উঠবে।

বোরিক এসিডের সঙ্গে চিনির একটি মিশ্রণ তৈরি করতে পারেন।চিনির টানে আরশোলা আসবে আর বোরিক অ্যাসিডের মতো বিষের সংস্পর্শে এলেই মরবে। প্রসঙ্গত এই মিশ্রণের মধ্যে আপনারা সাবান জল মিশিয়ে নিতে পারেন। আরশোলা কখনোই এই জাতীয় মিশ্রণের গন্ধ সহ্য করতে পারে না। তাই এই ধরনের মিশ্রণ দিয়ে ঘর মুছলে খুব সহজেই ঘর পোকামাকর মুক্ত হয়ে উঠবে।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button