1. admin@bartamannews.com : admin :
শুক্রবার, ১৪ জুন ২০২৪, ০৫:১২ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
গোগনগর কয়লাঘাট হাট নয় যেনো মরন ফাঁদ গ্যাস বন্ধের প্রতিবাদে তিতাস গ্যাস অফিস সামনে বিক্ষোভ সমাবেশ করে জালকুড়ি এলাকাবাসী জেল-জরিমানা দিয়ে পরিবেশ রক্ষা করা যাবে না: না.গঞ্জ জেলা প্রশাসক উচ্চ আদালতে জামিন হওয়ায় গিয়াসউদ্দিনের রিমান্ড শুনানী স্থগিত ভাড়া হবে লিফলেট দেখলে উঠে যান বাসায়, সখ্যতা গড়ে হাতিয়ে নেন স্বর্ণালঙ্কার বেনজীর আহমেদ প্রসঙ্গে র‍্যাব মহাপরিচালক ব্যক্তির সঙ্গে র‍্যাবের ভাবমূর্তি নষ্টের সম্পর্ক নেই ফরিদপুর ডায়াবেটিক মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে আইসিইউ ওয়ার্ডের উদ্বো সংসদে প্রধানমন্ত্রী মালয়েশিয়ায় শ্রমিক জটিলতায় দায়ীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা ধর্মমন্ত্রীর বেহাত আইফোন মালয়েশিয়া থেকে উদ্ধার চোর চক্রের ৯ সদস্য গ্রেপ্তার তিনি আইনজীবী নন, টাউট

ঐক্য ফিরিয়ে ১৪ দলকে সক্রিয় করার উদ্যোগ বৈঠকে বসছেন নেতারা আজ

  • প্রকাশের সময় : মঙ্গলবার, ৪ জুন, ২০২৪
  • ১৬ বার পঠিত

ঝিমিয়ে পড়া ১৪ দলকে সক্রিয় করার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। জোটে ঐক্য ফেরাতে শরিক দলগুলোর তাগিদেও শেষ পর্যন্ত সাড়া মিলেছে। প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার সঙ্গে বৈঠকের পর জোটের শীর্ষ নেতারা আজ মঙ্গলবার নিজেদের মধ্যে বৈঠকে বসতে যাচ্ছেন। এই বৈঠকে জোটের কর্মপরিকল্পনা ঠিক হবে বলে জানা গেছে।

১৪ দলের সমন্বয়ক-মুখপাত্র ও আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য আমির হোসেন আমুর রাজধানীর ইস্কাটনের বাসায় বেলা ১১টায় বৈঠকটি হওয়ার কথা রয়েছে। এরই মধ্যে শরিক দলের নেতাদের বৈঠকে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে।

আমির হোসেন আমু সমকালকে বলেন, ‘জোটকে কীভাবে আরও সক্রিয় ও শক্তিশালী করা যায়, সে বিষয়ে নিজেদের মধ্যে আলাপ-আলোচনা করব। জোটের পরবর্তী কর্মপরিকল্পনাও ঠিক করা হবে। আগামী দিনে ঐক্যবদ্ধভাবে কী কী কর্মসূচি নেওয়া যায়, সে বিষয়েও আলোচনা এবং সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।’
শরিক দলগুলোর কয়েকজন নেতা অবশ্য জানান, বৈঠকে দ্বাদশ সংসদ নির্বাচনে জোটের অবস্থা ও সার্বিক পরিস্থিতি মূল্যায়নের তাগিদ দেবেন তারা। বিশেষ করে শরিক দলগুলোর সঙ্গে আসন সমঝোতার ক্ষেত্রে অবহেলা, অবমূল্যায়ন ও ফল বিপর্যয়ের প্রসঙ্গ আসবে। এ বিষয়ে নিজেদের বক্তব্য তুলে ধরবেন জোটে শরিক দলের নেতারা। একই সঙ্গে দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতি, জনগণের দুর্ভোগ, অর্থনৈতিক সংকট, ব্যাংকিং খাতে দুর্নীতি, প্রভাবশালীদের বিরুদ্ধে ওঠা দুর্নীতির অভিযোগ, আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি ইত্যাদি বিষয়ে পদক্ষেপ নিতে সরকারকে তাগিদ দেবেন তারা।

এর আগে গত ২৩ মে গণভবনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে ১৪ দলের শীর্ষ নেতাদের বৈঠক হয়। ওই বৈঠকে শরিক নেতারা সংসদ নির্বাচনের আগে ও পরে তাদের অবমূল্যায়নের অভিযোগ এনে ক্ষোভের কথা তুলে ধরেন। উদ্ভূত পরিস্থিতিতে ১৪ দলীয় জোটের প্রাসঙ্গিকতা আছে কিনা, সেটিও জানতে চান। বৈঠকে শেখ হাসিনা জানান, জোটের প্রাসঙ্গিকতা আছে বলেই শরিক নেতাদের বৈঠকে ডাকা হয়েছে। জোট আছে, জোট থাকবে। তবে শরিক দলগুলোকে নিজেদের শক্তিতে বলীয়ান ও সুসংগঠিত হওয়ার তাগিদ দেন তিনি। এ ছাড়া অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ গড়তে ১৪ দলকে আরও সংগঠিত করার নির্দেশ দেন।
ওই বৈঠকের দেড় সপ্তাহ পর ১৪ দলের আজকের বৈঠকটি হচ্ছে। বিএনপি-জামায়াত জোট সরকারের বিরুদ্ধে আন্দোলনের ধারাবাহিকতায় ২০০৫ সালের ১৫ জুলাই ১৪ দল গঠন হয়। দুর্নীতি, সন্ত্রাস ও সাম্প্রদায়িকতার বিরুদ্ধে আন্দোলনসহ ২৩ দফা কর্মসূচিকে প্রাধান্য দিয়ে এই জোট যাত্রা করে। একসঙ্গে আন্দোলন, নির্বাচন ও সরকার গঠনের অঙ্গীকার ছিল এই জোটের। তবে ২০০৮ ও ২০১৪ সালের নির্বাচনের মাধ্যমে গঠিত মহাজোট সরকারে জোট শরিকদের কয়েকটি মন্ত্রিত্ব দেওয়া হলেও ২০১৮ সালের নির্বাচনের পর থেকে আওয়ামী লীগ অনেকটা ‘একলা চলো’ নীতি নিয়ে চলছে। ২০১৯ সালে তৃতীয় মেয়াদে গঠিত সরকারের পর এবার চতুর্থ মেয়াদের সরকারের মন্ত্রিসভাতেও শরিক দলের কোনো নেতার ঠাঁই হয়নি।

গত ৭ জানুয়ারির দ্বাদশ সংসদ নির্বাচনে আসন সমঝোতা নিয়ে শরিকদের মধ্যে ক্ষোভ ও অসন্তোষ চরম আকার ধারণ করে। সে সময় জোটের তিন শরিক দলকে মাত্র ছয়টি আসনে নৌকা প্রতীকে ছাড় দেওয়া হয়। যার মধ্যে চারটিতেই আওয়ামী লীগের স্বতন্ত্র প্রার্থীদের কাছে ধরাশায়ী হন শরিক দলের প্রার্থীরা। তবে নির্বাচন শেষে শরিক দলগুলোর একমাত্র প্রাপ্তি সংরক্ষিত নারী আসনের একটি এমপি পদ।

১৪ দলের অন্যতম শরিক ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেনন সমকালকে বলেন, ‘বৈঠকে আমরা আমাদের বক্তব্য তুলে ধরব। জোটকে সক্রিয় করার বিষয়ে আলোচনা করব। নিশ্চয়ই কোনো ইতিবাচক সিদ্ধান্ত আসবে।’
জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের (জাসদ) সভাপতি হাসানুল হক ইনু বলেন, ‘বৈঠকে ১৪ দলকে ঐক্যবদ্ধ রাখার তাগিদ দেব। এরপর জোটগতভাবে রাজনৈতিক কর্মসূচি বাড়বে বলে আশা করছি। তবে জাসদ এরই মধ্যে দলীয় কর্মসূচি নিয়ে রাজপথে সক্রিয় রয়েছে। ঈদুল আজহার পর দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতি, দুর্নীতি ও অর্থ পাচারসহ নানা বিষয়ে কর্মসূচি নিয়ে আমরা মাঠে থাকব।’

সাম্যবাদী দলের সাধারণ সম্পাদক দিলীপ বড়ুয়া বলেন, ‘জোটকে সক্রিয় করার উদ্যোগের পাশাপাশি জনদুর্ভোগ ও সংকটের বিষয়গুলো বৈঠকে উঠে আসবে

Facebook Comments Box
এই জাতীয় আরও খবর
© স্বত্ব সংরক্ষিত © ২০২৪ বর্তমান নিউজ
Theme Customized By Shakil IT Park