এবার মুখ খুললেন যশ, সাফ জানিয়ে দিলেন নুসরতের সন্তানের বাবা আমি না, রইল ভিডিও!

নিজস্ব প্রতিবেদন :- নুসরাত জাহান এবং নিখিল জৈন এর গল্প তরতাজা প্রতিদিনই । নতুন মাত্রায় রূপ নিচ্ছে । নুসরাত জাহানের অ-ন্তঃস্ব-ত্তা হবার খবর ছড়িয়ে পড়ার পর থেকেই বেড়েই চলেছে এই ঘটনার জ-ল্পনা ।বাড়ছে হাজার হাজার প্রশ্ন । প্রতিনিয়ত গল্পের নতুন মোড় দেখা দিচ্ছে । কিন্তু এরই মাঝে যাকে নিয়ে চর্চার মূল কেন্দ্রবিন্দু অর্থাৎ যাকে নিয়ে থাকছে হাজার হাজার প্রশ্ন সেই যশ সেনগুপ্ত এবার ক্যামেরার সামনে মুখ খুললেন । তুলে ধরলেন বি-স্ফো-রক কিছু তথ্য এবং এই তথ্যের জন্যই হয়তো অপেক্ষারত ছিল সফল মানুষেরা ।

অভিনয় জগতে সাফল্য পেলেও ব্যক্তিগত জীবনের সাফল্য বেশিদিন টিকিয়ে রাখতে পারেনি নুসরাত জাহান । ২০১৯ সালে নিখিল জৈন নামে এক ব্যবসায়ীকে তুরস্ক থেকে বিবাহ করেন তিনি । তার পরে এক বছরের মধ্যে সম্পর্ক পুনরায় বিচ্ছেদ করতে শুরু করে । ২০২০ সালের নভেম্বর মাসে নিখিলের ফ্ল্যাট থেকে সমস্ত দরকারি জিনিসপত্র নিয়ে বালিগঞ্জে নিজের ফ্ল্যাটে চলে যান নুসরাত জাহান । তারপর থেকে ক্রমশ ঘনীভূত হতে থাকে জ-ল্পনা মেঘ এবং এর অন্যতম প্রধান কারণ অভিনেতা যশ সেনগুপ্ত ।এমনটা মনে করছেন অনেক নেটিজেনরা।

নুসরাত জাহানের অ-ন্তঃস-ত্ত্বা নিয়ে চর্চা এখন তু-ঙ্গে । চা এর আড্ডা থেকে শুরু করে সব জায়গাতেই দেখা মিলছে নুসরাত জাহানের গল্প । কিন্তু এর মাঝে নেটিজেনরা অপেক্ষায় ছিল কবে যশ সেনগুপ্ত এই ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে কিছু বিবৃতি দেবে । অবশেষে সেই দিন চলে এসেছে । তবে প্রত্যক্ষ ভাবে যত কিছু না বললেও পরোক্ষভাবে তিনি একটি বার্তা প্রদান করতে চেয়েছেন । যার মধ্যে থেকেছে ধোঁ-য়াশার ভাব । অর্থাৎ পরিস্কার করে তিনি কাউকে উদ্দেশ্য করে কিছু বলেননি । এবার তার মানে খুঁজতে গিয়ে রীতীমতো না-জে-হাল অবস্থা হয়েছে প্রত্যেকের।

সম্প্রতি অভিনেতা যশ সেনগুপ্ত নিজের ইনস্টাগ্রামে একটি স্টরি শেয়ার করেছেন । সেখানে তিনি লিখেছেন চালাক মানুষেরা সমাধান করে বুদ্ধিমান মানুষের এড়িয়ে যায় । ঠিক এই পোস্টের পর থেকেই বেড়েছে জ-ল্পনা । যদিও তারপর থেকে আর যশ সেনগুপ্ত কে কোনো রকম কোনো মন্তব্য করতে যায়নি সোশ্যাল মাধ্যমে । যার ফলে নেটিজেনদের মনে প্রশ্ন থাকে এক্ষেত্রে যশ সেনগুপ্ত কাকে চালাক এবং কাকে বুদ্ধিমান বললেন সে প্রশ্নের উত্তর খুঁজছে মানুষ ।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button