মনের আনন্দে চিপস খেতে খেতে একদম খালি গলায় দুর্দান্ত সুরে গান করছেন রানু মন্ডল, ভাইরাল ভিডিও!

নিজস্ব প্রতিবেদন :- রানাঘাট স্টেশন চত্বরে থাকা রানু মন্ডল রাতারাতি ভাইরাল হয় লতা মঙ্গেশকর এর ” “এক প্যায়ার কা নাগমা হ্যা ” গান গেয়ে । লতা কণ্ঠী এই রানু মন্ডল কে চিনতে থাকে দেশের রাজপথ থেকে অলিগলির মানুষ । ব্যাস তারপর আর ঘুরে তাকাতে হয় নি তাকে । সোজা শিরোনামের শীর্ষে । সেই সময় এমন কোনো মিডিয়া ছিলো না যে রানু মন্ডলের কথা সম্প্রচার করেনি । করবেই না কেন? সব থেকে বেশি আলোচিত হওয়া খবর কোন মিডিয়া সম্প্রচার করতে চাই না ? । অন্যথা হয়নি এবার ও ।

রানু মন্ডল রাতারাতি জনপ্রিয়তা পেলেও হঠাৎ করে অ-ন্ধকারে ত-লিয়ে যায় তিনি এবং এর মূল কারণ হচ্ছে তার অহংকার । তিনি না চাইতেই এতো কিছু পেয়ে গিয়েছিলেন যে সে গুলোকে ধরে রাখার ক্ষ-মতা হয়নি তার । তাই মানুষের সাথে কিরকম ভাবে ব্যবহার করা উচিত সেটি তিনি আয়ত্ত করতে পারেননি । হঠাৎ করে অ-ন্ধকার থেকে এতগুলো আলো এবং ক্যামেরার সামনে এসে রীতিমতো নিজেকে হা-রিয়ে ফে-লেছেন তিনি । জ-ন্মেছিল শরী-রের মধ্যে যে অ-হংকার সেটিকে নিয়ন্ত্রণ রাখতে পারেনি।

যার ফলে অগোচরে হা-রিয়ে যেতে হলো রানু মন্ডলকে। রানু মন্ডল কোথাও যেন আমাদের সমাজে ক্ষেত্রে উত্থান এবং প-তনের উদাহরণস্বরূপ হিসেবে থেকে যাবে চিরকাল । দেশের এই ক-ঠিন প-রিস্থিতিতে রানু মন্ডল এ অবস্থার সত্যি খুব শোচনীয় । আবার পুনরায় ফিরে গেছেন তিনি রানাঘাটের নিজের বাড়িতে । বাড়িতে অবস্থা প্রায় ভগ্নপ্রায় ইতিমধ্যে অনেক জন ইউটিউবার তার সাথে দেখা করতে এসেছেন এবং হাতে তুলে দিয়েছেন বিভিন্ন ধরনের শুকনো খাবার বা টাকা-পয়সার । যাতে আগামী দিন তিনি ভালো ভাবে জীবন যাপন করতে পারেন ।

ঠিক তেমনি সম্প্রতি একটি যুবক তার সাথে দেখা করতে গিয়েছিলেন । সাথে নিয়ে গিয়েছিলেন কিছু শুকনো খাবার । শুকনো খাবার রানু মন্ডলের তিনি তুলে দিয়েছিলেন । তারপর সেখান থেকে একটি চিপসের প্যাকেট বের করে তিনি চিপস খেতে শুরু করেন তার সামনে এবং সেই যুবকের অনুরোধে যে গানটি গেয়ে ভাইরাল হয়েছিল সেই গানটি আরেকবার শোনালেন । অর্থাৎ এক পেয়ার কা নাগমা হে গানটি গাইলেন । ইতিমধ্যে তার সেই ইউটিউব চ্যানেলের ভিডিওটি দেখে ফেলে ছে অনেকে । এসে প্রচুর মন্তব্য।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button