“নুসরতের গ’র্ভে নিখিলের সন্তান” এবার সরাসরি লাইভে এসে মুখ খুললেন অভিনেতা যশ দাশগুপ্ত, ভাইরাল ভিডিও!

নিজস্ব প্রতিবেদন :- আমরা যতই তার অভিনয় জগতের সাফল্য নিয়ে কথা বলি না কেন ব্যক্তিগত জীবনে কিন্তু তিনি সফল হতে পারেনি বরং একাধিক কু-রুচিকর মন্তব্যের শি-কার হতে হচ্ছে প্রতিনিয়ত শুধুমাত্র তার খামখেয়ালীপনার জন্য ২০১৯ সালে তুরস্ক থেকে বিবাহ সম্পন্ন করে নুসরাত জাহান ব্যবসায়ী নিখিল জৈন কে । তারপর থেকে তার সম্পর্ক ভালো চললেও ২০২১ এর প্রথম দিক থেকে শুরু হয় সম্পর্কের বি-চ্ছেদ । এমনটা গু-জব ছ-ড়িয়েছে যে তাদের মধ্যে সম্পর্কের বি-চ্ছেদ করতে চলেছে সেই ঘটনা কে প্রশ্রয় দিলেন তিনি নিজেই । জোরালো যশ দাশগুপ্তের নাম ।

আমরা এর আগে দেখেছিলাম যশ সেনগুপ্ত তার ইনস্টাগ্রাম স্টোরিতে একটি পোস্ট শেয়ার করেছিলেন যার ফলে বেড়েছিল জ-ল্পনা যদিও তিনি কাউকে উদ্দেশ্য করে একথা বলেছেন কিনা তা জানা যায়নি । এবং সেই পোষ্টটি তিনি লিখেছিলেন যে চালাক মানুষেরা সমাধান করে আর বুদ্ধিমান মানুষেরা এড়িয়ে যায় । কিন্তু সম্প্রতি সংবাদমাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে ক-ড়া জ-বাব দিলেন যশ সেনগুপ্ত ।

এই ঘটনা প্রকাশ্যে আসার পর থেকেই অনেকেই যশ সেন গুপ্ত কে দায়ী করছেন । এবং তার মুখ থেকে প্রতিক্রিয়া শোনার জন্য অপেক্ষায় রয়েছেন । কিন্তু এতদিন ধরে কোনো প্রতিক্রিয়া না পাওয়া গেলও সম্প্রতি যশ সেনগুপ্ত বলেন যে আমাকে নিয়ে এবার গু-জব রটানো বন্ধ হোক । আমি নুসরাতের সন্তানের বাবা নই । নিখিলের পর এবার যশ সেনগুপ্ত সরাসরিভাবে জানিয়ে দিলেন নুসরাতের সন্তানের বাবা তিনি নন । তাহলে প্রশ্ন আরো গ-ভীরভাবে উঠে আসছে যে নুসরাত জাহানের সন্তানের বাবা কে।

কিন্তু কিছুতেই কমছে না এর জ-ল্পনা । তাই পুনরায় আরো একবার সংবাদমাধ্যমের মুখোমুখি হতে হল যশ দাশগুপ্ত কে ।এবং এবার তিনি প্রমাণ সহ বললেন যে নুসরাতের গর্ভে থাকা সন্তান আমার সন্তান নয় । সেটি নিখিলের সন্তান ।তিনি বলেন যে নুসরাত ছয় মাসের অ-ন্তঃস-ত্ত্বা । অপরদিকে নিখিল বলছে যে তিনি নাকি নুসরাতের সাথে ছয় মাসে কোন যোগাযোগ রাখে নি । অথচ নুসরাতের কবে সন্তান জন্ম হবে তার ডেট জানেন। এটা কিভাবে সম্ভব । তার পাশাপাশি নুসরাত যদি ছয় মাসের অ-ন্তঃস-ত্ত্বা হয় তাহলে ছয় মাস আগে নুসরাত-নিখিলের সাথে ছিল আমার সাথে নয় । এই তথ্য তুলে ধরা পর থেকে সত্যি গল্পের দিক ঘুরতে চলেছে বলে মনে হচ্ছে

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button