কেবল ডিম দেখিয়ে দারুন কায়দায় দুর্দান্ত পদ্ধতিতে ময়ূর ধরলেন যুবতী, তু-মু’ল ভাইরাল ভিডিও!

নিজস্ব প্রতিবেদন:সোশ্যাল মিডিয়ায় আমরা ক্রমাগত নানান ধরনের ভাইরাল ভিডিও সম্পর্কে জ্ঞান লাভ করতে পারি। এর মধ্যে কিছু ভিডিও রয়েছে যা আমাদের মনকে আনন্দ দিয়েছে; আবার কিছু ভিডিও রয়েছে যা অনেক সময় আমাদের মনকে ভারাক্রান্ত করে দেয়। তবুও সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহার করা ছাড়েননি অনেক মানুষ।

তার কারণ অনেকের মনের মধ্যেই এই অ্যাপ্লিকেশনগুলি ব্যবহার নিয়ে আসক্তি জন্মিয়েছে।যার ফলস্বরুপ সারাদিনের ব্যস্ততার মাঝে হোক বা কাজের অবসরে সোশ্যাল মিডিয়া মানুষের দৈনন্দিন জীবনের সাথে অঙ্গাঙ্গিভাবে যুক্ত হয়ে গিয়েছে।আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনে আমরা আলোচনা করব একটি এমন ভাইরাল ভিডিওর কথা যা দেখলে যে কোন মানুষ খুব সহজেই অবাক হতে বাধ্য।

ভাইরাল ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে যে কোন একটি জ-ঙ্গ-লাকীর্ণ জায়গায় খুব সহজ পদ্ধতিতে মাইক্রোফোন এবং ডিম ব্যবহার করে ময়ূর ধরেছেন এক যুবতী। ভিডিওটি আপাতদৃষ্টিতে যে কোন মানুষকে অবাক করে দিতে পারে।কারণ যে সমস্ত জিনিস সাধারণত ব্যবহার করার পর আমরা ফেলে দিয়ে থাকি সেই সব জিনিসকে ব্যবহার করেই এই কাণ্ড ঘটিয়ে ফেলেছেন ওই যুবতী।

এইসব জিনিসের মধ্যে রয়েছে ভাঙ্গা পাইপের টুকরো, দড়ির অংশ প্রভৃতি।খুব সহজ পদ্ধতিতে জঙ্গলের মধ্যে ফাঁকা জায়গায় তিনি এই জিনিসগুলো ব্যবহার করে জাল তৈরি করেছেন। নির্দিষ্ট সময় অন্তর সেই জালের কাছে এসে দেখা যায় বিশাল আকৃতির ময়ূর আটকা পড়েছে সেখানে।

নেট নাগরিকদের সকলেই ভিডিওটিকে অত্যন্ত পছন্দ করেছেন। কারণ ভিডিওতে যেভাবে তিনি সমস্ত ঘটনাটিকে উপস্থাপন করেছেন তা নিঃসন্দেহে প্রশংসার যোগ্য।সোশ্যাল মিডিয়ার সাহায্যে এই ভিডিওগুলি আমরা দেখতে পাই তাই অবশ্যই আমাদের দিনশেষে সোশ্যাল মিডিয়াকে কুর্নিশ জানানো উচিত।উল্লেখ্য সোশ্যাল মিডিয়া বর্তমানে এমন একটি প্লাটফর্ম যেখানে শুধুমাত্র এই ধরনের নানান ভাইরাল ভিডিও নয় বিভিন্ন শিক্ষামূলক ভিডিও আমরা দেখতে পাই।

এছাড়াও রয়েছে অনেক মানুষের নিজস্ব ভিডিও। সেই ভিডিওতে আমরা অনেকের ব্যক্তিগত প্রতিভা সম্পর্কে পরিচিতি লাভ করতে পারি। যেমন কিছুদিন আগেই আমরা ফেসবুক পেজ থেকে একটি মা ও মেয়ের ভাইরাল ভিডিও পেয়েছিলাম।যেখানে দেখা যাচ্ছিল কোন রকম বাদ্যযন্ত্র ছাড়াই খালি গলায় এই মা ও মেয়ে জনপ্রিয় হিন্দি গানগুলি গেয়ে চলেছিলেন।

মা প্রাপ্তবয়স্ক হলেও মেয়ের বয়স কিন্তু ৫—৬ এর বেশি ছিল না। এই ভিডিওটিকেও দর্শকরা অত্যন্ত ভালোবাসা দিয়েছিলেন। যাই হোক আমাদের এই প্রতিবেদনটি আপনাদের কেমন লাগলো একটি মন্তব্যের মাধ্যমে অবশ্যই জানাবেন। আপনার মন্তব্য আমাদের কাছে অত্যন্ত তাৎপর্যপূর্ণ।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button