বন্যায় বাড়ির উঠোনে এসেছে গঙ্গার জল, জাল ফেলতেই অসাধারণ কায়দায় বেশ কয়েকটি বড় মাছ তুললেন যুবক, তুমুল ভাইরাল ভিডিও!

নিজস্ব প্রতিবেদন: মানুষের জীবনটা কতটা কঠিন তা বর্তমানে আমরা সোশ্যাল মিডিয়াতে চোখ রাখলেই খুব সহজে বুঝতে পারি। সোশ্যাল মিডিয়ার সাহায্যে আমরা বর্তমানে নানান ধরনের ভিডিও এবং ফটো দেখতে পাই যা আমাদের অবাক করে রেখে দেয়। পৃথিবীর প্রতিটি জায়গায় মানুষের জীবন হচ্ছে অত্যন্ত ল-ড়াইয়ের।

বাস্তু তন্ত্রের নিয়ম অনুযায়ী প্রতিটি প্রাণীকে সামঞ্জস্য বজায় রাখার মাধ্যমে পৃথিবীতে টিকে থাকতে হয়। মানুষের ক্ষেত্রেও এই নিয়মের কোন ব্যতি-ক্রম ঘটতে লক্ষ্য করা যায়নি।আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনে আমরা এমন একটি ভিডিও নিয়ে আলোচনা করবো যা হয়ত দেখলে আপনাদের অনেকেই অবাক হবেন।বিভিন্ন প্রাকৃতিক বিপ-র্যয় মানুষের জীবনে কতটা ক্ষতি বয়ে নিয়ে আসতে পারে তা খুব সহজেই ধারণা তৈরি করবে এই ভিডিওটি দেখার পর।

প্রসঙ্গত এই ভাইরাল ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে কোন একটি গ্রাম্য অঞ্চলের সমস্ত বসত বাড়ির সামনে বন্যার জল ঢুকে গিয়েছে। বেশির ভাগ লোকজনই এই অবস্থায় দিন কাটাচ্ছেন।খাওয়া-দাওয়া থেকে শুরু করে জীবিকা নির্বাহ করার অন্যান্য কোন ব্যবস্থা নেই বললেই চলে। জানা গিয়েছে এটি গঙ্গা নদীর নিকটবর্তী কোন একটি গ্রামের। যেখানে প্রবল প্লাব-নের ফলে এই অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে।

কিন্তু তাতেও হার মেনে নেননি এই অঞ্চলের মানুষ। প্রাকৃতিক বিপ-র্যয় এর সাথে ল-ড়াই করে বেঁচে থাকার জন্যে নিত্যনতুন পদ্ধতি বের করেছেন এখানকার বাসিন্দারা।দেখা যায় খাবার-দাবারের অভাব থাকায় বাসিন্দাদের মধ্যে থাকা এক যুবক হঠাৎ করেই বন্যার জল এর মধ্যে জাল ফেলে অসাধারণ কায়দায় একের পর এক মাছ ধরতে শুরু করেন।আমরা সকলেই জানি যখন কোথাও ব-ন্যার জল প্রবেশ করে তখন তার সাথে অনেক মাছ বড় কোন নদী বা জলাশয় থেকে এইসব জায়গায় ভেসে চলে আসে।

তাই ওই বাসিন্দারাও নিজেদের বুদ্ধিকে কাজে লাগিয়ে এভাবে নিজেদের খাদ্যাভাবকে দূর করার চেষ্টা চালিয়েছেন। ভিডিওটি দেখে যেমন দুঃখ প্রকাশ করেছেন অনেকে আবার তেমনই ওই যুবকদের প্রশংসা করেছেন নেটিজেনরা। কারণ বুদ্ধি এবং বিচার দ্বারা তারা যেভাবে নিজেদের জীবনকে যেভাবে বাঁচিয়ে রাখার চেষ্টা করেছেন তা নিঃসন্দেহে অত্যন্ত প্রশংসার।আমরা আশা করব খুব দ্রুত যেন ওই এলাকার বাসিন্দারা এই পরিস্থিতি থেকে মুক্তি লাভ করতে পারে।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button