যে তিনটি লক্ষণ দেখলে আপনি বুঝবেন আপনার কন্যা সন্তান হবে, রইল বিস্তারিত!

নিজস্ব প্রতিবেদন :- মা হওয়া একটি গর্বের ব্যাপার । মাতৃত্ব বাকি সকল ঘটনাকে ছাপিয়ে যাবার ক্ষ-মতা রাখে। আমাদের মধ্যে অনেকেই হয়তো চায় যে তার বাড়িতে বা তার কোলে আসুক ফুটফুটে একটি কন্যাসন্তান। আবার কেউ কেউ চাই তার কোলে ফুটফুটে একটি পুত্রসন্তান। সেটি জানার জন্য
অনেক পদ্ধতি বাজারে থাকলেও সেগুলো একান্তই গোপনীয় এবং সুরক্ষিতভাবে করা হয়। কারণ আমাদের মধ্যে অনেকেই কন্যা ভ্রু-ণ হ-ত্যা ক-রার মা-নসিকতা থেকে থাকে ।পৃথিবীতে জন্ম নেওয়ার অধিকার পুত্র এবং কন্যার ওপর সমানভাবে আছে।

কিন্তু বেশ কিছু ঘটনা আমাদের সামনে এসেছে যার থেকে প্রমাণিত হয় যে কন্যা ভ্রু-ণ ন-ষ্ট ক-রে দেওয়ার জন্য মরিয়া হয়ে ওঠেন কিছু কিছু মায়েরা। কিন্তু এমন বেশ কিছু লক্ষণ থাকে যা থেকে আপনি সহজে বুঝতে পারবেন আপনার গ-র্ভে থা-কা ভ্রু-ণ কোন লি-ঙ্গের । গ-র্ভের ভ্রূ-ণ যদি কন্যা হয় তাহলে বেশ কিছু লক্ষণ পরিস্ফুট হয়ে ওঠে যেমন। গর্ভের সন্তান পুত্র না কন্যা সেটা জানার জন্য বিজ্ঞানীরা নিরন্তর গবেষণা চালিয়ে গেছেন এবং দীর্ঘদিন যাবৎ এ গবেষণা চালানোর পর তারা এই সিদ্ধান্তে উপনীত হয়েছেন

এবং সেই সিদ্ধান্ত থেকে উঠে আসছে এই তথ্য যেখানে জানানো হচ্ছে যদি প্রসবের আগে র-ক্তচা-প কম থাকে তাহলে তার কন্যা সন্তান জন্ম হবার সম্ভাবনা প্রবল পরিমাণে । ২০০৯ সাল থেকে চীনের লুইয়াং শহরে গত সাত বছর ধ’রে ৩৩৭৫ জন গ-র্ভব-তী মহিলার ওপর পরীক্ষা করেছে এই গবেষক দল। তার মধ্যে ১ হাজার ৬৯২ জনের র-ক্তচা-প, কো-লেস্টে-রল, ট্রাইগ্লিসারাইড এবং গ্লুকোজে’র মূল্যায়ন করা হয়। তাদের মধ্যে ৭৩৯ জনের ছেলে ও ৬২৭ জনের মেয়ে হয়। দীর্ঘ পর্যবেক্ষণের পরই গবেষক দল এই সিদ্ধান্তে পৌঁছেছেন।

এই সিদ্ধান্তের পর গবেষকরা বিজ্ঞানীরা স্পষ্ট ভাবে এই সিদ্ধান্তে উপনীত হয়েছেন যে র-ক্তচা-প নিয়ন্ত্রণ করে আপনার গর্ভে কি ধরনের সন্তান রয়েছে তা নির্ণয় করতে । চি-কিৎ-সক রবি রত্নাকরণ বলেছেন, ‘গ-র্ভবতী ম-হিলার প্র-সবের আ-গের র-ক্তচা-পের ওঠানামা অনেককিছুই নির্দেশ করে। আমরা দীর্ঘদিন ধরে পরীক্ষা করে দেখেছি যে, যদি প্র-সবের আ-গে গ-র্ভবতী ম-হিলার র-ক্তচাপ বেশ কমে যায়, তাহলে তিনি কন্যা সন্তানের জন্ম দিচ্ছেন। আর যার রক্তচাপ অনেকটা বেড়ে যায়, তাহলে তিনি পুত্র সন্তানের জন্ম দিচ্ছেন।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button