মোবাইল ফোনে এই নম্বরটি সেভ করা থাকলেই খালি হয়ে যাবে আপনার ব্যাংক অ্যাকাউন্ট! সর্তকতা জারি করল SBI।

নিজস্ব প্রতিবেদন :- আমরা প্রত্যেকেই আধুনিক হয়েছি এবং আধুনিকের এই চৌয়া মে আরও উন্নত করার জন্য প্রতিনিয়ত ব্যবহার করছি বিশেষ প্রযুক্তি প্রযুক্তির হাত ধরে । যেমন আমরা সামনের দিকে এগিয়ে চলেছি । ঠিক তেমনি প্রতিনিয়ত বিপদ আমাদেরকে গ্রাস করে চলেছে । আমরা হয়তো এখন আমাদের সারা বছরের জমানো উপার্জনের টাকা ব্যাংক এর মধ্যে জমা রেখে থাকি । কিন্তু আপনি কি জানেন যদি আপনার মোবাইলের এই নাম্বারটি থেকে থাকে বা এই ধরণের তথ্য থেকে থাকে তাহলে কিন্তু আপনার সারা জীবনের টাকা মুহূর্তের মধ্যে শেষ হয়ে যেতে পারে একদমই ঠিক শুনেছেন ।

আমরা এর আগে বিভিন্ন ধরনের ব্যাংকিং ফ্রড এর কথা শুনেছিলাম বা জালিয়াতির কথা শুনেছিলাম । যেখানে নির্দিষ্ট লিংক প্রেরণ করা হতো এবং এই লিংকে ক্লিক করলে মুহূর্তের মধ্যে ফাঁকা হয়ে যেত ব্যাংকের অ্যাকাউন্ট । কিন্তু এবার থেকে অন্যরকম পদ্ধতি গ্রহণ করছে হ্যাকাররা । হ্যাকাররা যেহেতু গ্রাহকদের মোবাইল সম্পূর্ণভাবে হ্যাক করে নিতে পারে । তাই মোবাইলে থাকা সমস্ত জরুরি নথিপত্র তারা জানতে পারে ।

কাজেই গ্রাহকদের কে বারবার উদ্দেশ্য করে এমনটা বলা হচ্ছে যে তারা যেন কোন মতেই তাদের মোবাইলে জরুরি নথিপত্র ব্যাঙ্কের ডিটেলস এটিএম কার্ডের পিন ইত্যাদি সেভ না করে রাখে । ব্যাঙ্কের তরফ থেকে গ্রাহকদের সাবধান করে বলা হয়েছে, “ভুলেও যেন ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট বা অনলাইন ব্যাঙ্কিংয়ের ডিটেল ফোনে সেভ না করে রাখে ৷ অ্যাকাউন্ট নম্বর, পাসওয়ার্ড, এটিএম কার্ডের নম্বর বা ছবি তুলে রাখাও উচিত নয়, কারণ এখান থেকে সহজেই আপনার অ্যাকাউন্ট সংক্রান্ত ডিটেল লিক হয়ে যেতে পারে ৷

পাশাপাশি নিজের এটিএম কার্ড কারোর সঙ্গে শেয়ার না করার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।”স্টেট ব্যাঙ্কের তরফে একাধিক বার গ্রাহকদের সাবধান এবং বারণ করা হয়েছে যে, পাবলিক ইন্টারনেট পরিষেবা ব্যাঙ্কিং লেনদেন না করার জন্য। এখান থেকে আপনার পার্সোনাল ডিটেইলস লিক হয়ে যেতে পারে ৷ এটাও স্পষ্ট করে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে যে, ব্যাঙ্কের তরফে কখনও এসএমএস করে ইউজার আইডি, পিন, পাসওয়ার্ড, সিভিভি , ওটিপি এইসব চাওয়া হয় না ৷ আগামী দিনে কোন গ্রাহক যাতে এই ধরনের সমস্যার সম্মুখীন না হয় তার জন্য আগে থেকে সতর্কবার্তা জারি করেছে স্টেট ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়া ।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button