১০ লক্ষ টাকার স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ডের দারুণ ৮ টি সুবিধা, রইল ৮টি গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্ট!

নিজস্ব প্রতিবেদন :- ইতিমধ্যে রাজ্য সরকারের প্রশংসায় পঞ্চমুখ সকলে । উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষার আগে দশ হাজার টাকা করে ট্যাব কেনার জন্য টাকা দিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ফলে আনন্দে আত্মহারা হয়ে উঠেছেন। তারা এবার রাজ্যের সমস্ত পড়ুয়াদের জন্য ঘোষণা করেছিলেন আরো বড়সড় এক প্রকল্প যার নাম স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ড । ভোটের আগে ইশতেহারে স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ডের উল্লেখ ছিল । তার জানিয়েছিলেন তিনি রাজ্যের বুকে চালু করবেন এই প্রকল্প ।

আমাদের রাজ্যে এমন বহু ছেলেমেয়েরা রয়েছে যারা টাকা পয়সার অভাবে পড়াশোনা করতে পারে না । সেই সমস্যা যদি সমস্যা যাতে তাদের না হয় তার জন্য স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ড যার মাধ্যমে আপনাকে দেওয়া হবে ১০ লক্ষ টাকা ঋণ হিসেবে । কিন্তু স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ড এর কিছু গুরুত্বপূর্ণ বৈশিষ্ট্য রয়েছে বা নিয়ম রয়েছে যেগুলো আপনার জানা অত্যন্ত জরুরি যদি আপনি স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ডের জন্য আবেদন করতে চলেছেন । আসুন দেখেনি সেই নিয়ম গু-লি কি কি

১)প্রথম যে নিয়ন্ত্রণ রয়েছে সেখানে আপনাকে জানানো হচ্ছে যে আপনি যত টাকা ঋণ নেবেন তার 4% সুদে হিসেবে আপনাকে ঋণ পরিশোধ করতে হবে এবং খুব সহজ-সরল পদ্ধতিতে এই ঋণ শোধ হবে বলে জানা যাচ্ছে।

২)স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ডের মাধ্যমে ঋণ নিতে গেলে কোনো রকম কোনো গ্যারান্টি আগে প্রয়োজন হবে না সরকারের নিজস্ব গ্যারান্টার যার ফলে ব্যাংক কর্তৃপক্ষ গুলি অভিভাবক দের উপর স্থাবর-অস্থাবর সম্পত্তি নিয়ে কোনো রকম কোনো চাপ দিতে পারবেন না।

৩)এই ঋণ পাওয়া যাবে যে সকল ব্যাঙ্কগুলি থেকে সেগু-লি হল যে কোন রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্ক, বেসরকারি ব্যাঙ্ক, কো-অপারেটিভ ব্যাঙ্ক এবং আঞ্চলিক গ্রামীণ ব্যাঙ্ক।

৪)আবেদনকারী বয়স 40 বছর বা তার কম হতে হবে অর্থাৎ সর্বোচ্চ 40 বছর পর্যন্ত এই ঋণ নেওয়া যাবে ।

৫)আবেদনকারীকে অন্তত দশ বছর বা তার বেশি পশ্চিমবঙ্গের স্থায়ী বাসিন্দা হতে হবে তবেই তিনি প্রকল্পের আওতায় অন্তর্ভুক্ত করতে পারবে নিজেকে

৬) এই প্রকল্পের সুবিধা নিতে পারবেন সেই সকল পরীক্ষার্থীরা যারা মাধ্যমিক, উচ্চ মাধ্যমিক, উচ্চ শিক্ষা, পেশাদার শিক্ষায় দেশে-বিদেশে যেকোনো জায়গায় পড়াশোনার জন্য। এছাড়াও ঋণ নেওয়া যাবে প্রতিযোগিতামূলক কোচিং সেন্টারে কোচিং নেওয়ার জন্য।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button