জোড়া ঘূর্ণাবর্তের সাথে রয়েছে মৌসুমী অক্ষরেখার চিহ্ন, আগামী ছয় দিন একটানা বৃষ্টিপাত হবে যে ছয় জেলায়!

নিজস্ব প্রতিবেদন :- কিছুতেই পার পাওয়া যাচ্ছে না এই বৃষ্টির হাত থেকে । একসময় রাজ্যবাসী মন থেকে চেয়েছিল যাতে খুব শিগগিরই বর্ষা নেমে আসে তাদের রাজ্যে । কারণ অত্যধিক মাত্রায় গরম রীতিমতো না-জেহাল করে তুলছিল সমস্ত রাজ্যবাসীকে । সেই অর্থে প্রত্যেক মানুষ চেয়েছিল যেন অতি শীগ্রই রাজ্যে বর্ষা নেমে আসুক । কিন্তু বর্ষার এই সক্রিয়তা দেখে রীতিমত অবাক প্রত্যেকে । জলমগ্ন এলাকা একের পর এক ।

তার পাশাপাশি বানভাসির মতন পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছে গোটা রাজ্যজুড়ে । কারণ একনাগাড়ে চলছে বৃষ্টি । এখন মানুষ চাইছে যত তাড়াতাড়ি সম্ভব এর প্রভাব কেটে যাক । পশ্চিমবঙ্গে বর্ষা ঢুকে ছিল মূলত নি-ম্নচা-পের হাত ধরে এবং সেই নি-ম্নচা-প গ-ভীর নি-ম্নচা-পে পরিণত হয়েছিল । তারপর সেটি বিহার এবং উত্তরপ্রদেশে দিকে রওনা হয়েছে । কিন্তু এখনও তার প্রভাব কাটেনি পশ্চিমবঙ্গের উপর ।

আর এরই মাঝে বাংলাদেশ পশ্চিমবঙ্গের সীমান্ত আরেকটি ঘূ-র্ণবা-তের সৃষ্টি হয়েছে । যার ফলে প্র-চন্ড জলীয়বাষ্প এবং মৌসুমি বায়ু প্রবেশ করছে রাজ্যে ।তাই সেখান থেকে বলা যেতে পারে যে আবার রাজ্যে দ্বিতীয় ইনিংস খেলতে চলেছে এই বর্ষা। ২০ জুন রবিবার সকালের মধ্যে উত্তরবঙ্গের আটটি জেলার সবকটিতেই ভারী বৃষ্টি হয়েছে। আগামী তিনদিন দিনের তাপমাত্রার সেরকম কোনও পরিবর্তন না হলেও,

পরের ২ দিনে তাপমাত্রা বাড়বে।তবে কলকাতায় রবিবার বৃষ্টি পরিমাণটা একটু কম। কিন্তু এখনই পরিস্থিতির উন্নতি হচ্ছে না বলে জানা যাচ্ছে। আলিপুর আবহাওয়া দপ্তর জানিয়েছে,উত্তরের জেলাগু-লিতে ভারী থেকে অতি ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে । তার পাশাপাশি জা-রি করা হয়েছে কমলা সতর্কবার্তা । এবং উত্তরের এর প্রভাব পড়বে দক্ষিণবঙ্গে রাজ্যগু-লিতে ।যেমন নদিয়া পূর্ব মেদিনীপুর পশ্চিম মেদিনীপুর বাঁকুড়া বর্ধমান বীরভূম জেলাতে এর প্র-ভাব পড়বে । যার ফলে আগামী বেশ কয়েকদিন মেঘাচ্ছন্ন থাকবে রাজ্য জুড়ে ।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button