প্রকাশ্যে এল কারখানায় কয়েন তৈরীর দুর্লভ ভিডিও! রইল ভিডিও।

নিজস্ব প্রতিবেদন :- আপনি সকাল বেলায় ঘুম থেকে ওঠা থেকে শুরু করে রাত্রে বেলায় পুনরায় ঘুমোতে যাওয়া পর্যন্ত যে জিনিসটি আমাদের সাথে থাকা অত্যন্ত জরুরী এবং যেটি না থাকলে জীবন থমকে যায় সেটি হল টাকা । ঠিকই ধরেছেন কারণ মানুষ পড়াশোনা শিখে বড় হয়ে মানুষের মতো মানুষ হতে চায় শুধুমাত্র উপার্জন করবে বলে । এবং এই টাকা থাকার উপর বিচার হয় আপনি কোন শ্রেণীর অন্তর্ভুক্ত হচ্ছেন অর্থাৎ কোন শ্রেণীর মানুষ হিসেবে সমাজের কাছে বিবেচিত হবেন সেটা নির্ভর করবে আপনার পকেট এ কত টাকা থাকলে সেটার উপর । অতএব আপনারা কম বেশি প্রত্যেকেই জানেন যে টাকার গুরুত্ব কতখানি।

ভারতীয় বাজারে নোট ও কয়েন ইত্যাদি প্রচলন রয়েছে ব্যাপক পরিমাণে । ৫০০ টাকা ২০০০ টাকার নোটের প্রচলন রয়েছে । তার পাশাপাশি রয়েছে এক টাকা দুই টাকা পাঁচ টাকা দশ টাকা এমনকি কুড়ি টাকা কয়েন এর প্রচলন । কিন্তু আপনি কি জানেন যে এগুলো ঠিক কিভাবে বানানো হয় বা কখনো কী দেখেছেন । যদি না দেখে থাকেন তাহলে আজকের এই প্রতিবেদনটি আপনার জন্য ।কারণ আজকের এই প্রতিবেদনে আমি ইউটিউব এর একটি ভিডিও সম্বন্ধে বলতে চলেছি যে ভিডিওতে দেখানো হয়েছে বিস্তারিত ভাবে কিভাবে কয়েন তৈরি করা হয় কারখানা তে।

দেখুন আমরা উন্নত হয়েছি সেই সূত্রে বেড়েছে আমাদের চাহিদা । প্রতিনিয়ত বিভিন্ন কল কারখানা তৈরি হচ্ছে । আবিষ্কার হচ্ছে আধুনিক যন্ত্রপাতি ।এবং সেই সমস্ত যন্ত্রপাতির জন্যই অনেক কঠিন এবং সময়সাপেক্ষ কাজগু-লি সহজে হয়ে যাচ্ছে । ঠিক তেমনি তৈরি হয় কয়েন । বিভিন্ন আধুনিক যন্ত্রপাতি মেশিনের দ্বারা সম্প্রতি ইউটিউবে ভিডিও প্রকাশিত হয়েছে ।সেখানে দেখানো হয়েছে যেটি কারখানাতে কিভাবে কয়েন তৈরি করা হয়।

সে ভিডিওটি দেখলে আপনি নিশ্চিন্ত ভাবে বুঝতে পারবেন যে প্রথমে স্টিল এবং অ্যালমনিয়ামের কিছু গুঁড়ো যে উত্তপ্ত করা হয় এবং সেগুলো দিয়ে গলিয়ে নেওয়া হয় । তারপর বিভিন্ন আকারের মধ্যে সেগুলিকে ফেলে দেয়া হয় । তারপর সেগুলো থেকে অর্থাৎ প্লেটগুলো থেকে গোল করে আকৃতিতে বিভিন্ন কয়েনের মাপ অনুযায়ী কেটে নেওয়া হয় । এবং একটি হাইড্রোলিক মেশিন এর দ্বারা চা-প প্র-য়োগ করে তারপর বাকি সমস্ত কাজ অর্থাৎ কত টাকার কয়েন কত সালে এটি তৈরিতে ইত্যাদি যে তথ্যগুলি ছাপা হয় আর তারপরেই পালিশ করার পর বাজারে আনা হয় ।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button