অভাবের সময়ে বাড়ি বাড়ি ঘুরে সেলসম্যান এর কাজ করতে হয়েছে কাঞ্চনকে, তিনি এখন কত টাকার মালিক শুনলে অবাক হবেন!

নিজস্ব প্রতিবেদন :- কাঞ্চন মল্লিক কে নিয়ে এই মুহূর্তে জল্পনা তুঙ্গে । কারণ তার ব্যক্তিগত জীবনে লেগেছে ক-লঙ্কের দা-গ । শোনা যাচ্ছে প-রকী-য়া সম্পর্কে জড়িয়ে রয়েছে কাঞ্চন মল্লিক । অভিনেত্রী শ্রীময়ী চট্টরাজ এর সাথে প্রেমের সম্পর্কে লি-প্ত হয়েছেন কাঞ্চন মল্লিক । এমনটা শোনা যাচ্ছে সোশ্যাল মাধ্যমে । এবং এই অ-ভিযোগ প্রকাশ্যে তুলে এনেছেন তাঁর স্ত্রী পিংকি ব্যানার্জি । যদিও ঘটনার সত্যতা তদন্ত সাপেক্ষ । কিন্তু তবুও নেটিজেনদের ক-টূক্তির শুনতে হচ্ছে এই মুহূর্তে তাকে । কিন্তু কাঞ্চন মল্লিকের বাস্তব জীবন যদি আমরা দেখি তাহলে রীতিমতো বুঝতে পারব যে কতটা পরিশ্রম এবং সং-গ্রাম করে তিনি আজকে এই জায়গাটি অর্জন করেছে।

২০০২ সালে জিৎ এর সাথে সাথী সিনেমার মাধ্যমে তার অভিনয় জগতে পদার্পণ ঘটে । বলাবাহুল্য জনপ্রিয়তা লাভ করে । তারপর থেকে তার চরিত্র দর্শকদের মনে দা-গ কে-টে যায় । মূলত কমেডিয়ান চরিত্রে অভিনয় করতে দেখা গেছে কাঞ্চন মল্লিক কে বেশিরভাগ ক্ষেত্রে । তার পাশাপাশি কাঞ্চন মল্লিকা এমনটা খুব গভীরভাবে প্রমান করে দিয়েছেন যে জীবনে সাফল্য পেতে গেলে এবং জনপ্রিয়তা হয়ে উঠতে গেলে নায়ক চরিত্রে অভিনয় করা জরুরি নয় । পার্শ্বচরিত্রে থেকেও মানুষের মনকে জয় করা যেতে পারে । এবং জনপ্রিয়তা পাওয়া যেতে পারে ।

তবে এবার সে কাঞ্চন মল্লিকের বি-রুদ্ধে একাধিক অ-ভিযোগ উ-ঠেছে । মানসিক নি-র্যাতন ও সা-মাজিক অ-পরাধের অ-ভিযোগে অভিযুক্ত হয়েছে এই মুহূর্তে উত্তরপাড়া নবনির্বাচিত বিধায়ক । বহু কঠিন পরিশ্রম করে কাঞ্চন মল্লিক আজ এই জায়গাতে উপস্থিত হয়েছে। কলকাতার কালীঘাট অঞ্চলে জন্মেছেন তিনি। ভবানীপুরের মিত্র ইন্সটিটিউশন থেকে তিনি মাধ্যমিক পাস করেন এবং তার পরে তিনি কমার্স নিয়ে পড়াশোনা করেছিলেন। অভিনেতার বাবা একজন কারখানার কর্মী ছিলেন। ছোট থেকেই অভিনেতা অভাবের সংসারে বড় হয়েছেন তিনি।

তিনি সেলসম্যান হিসেবে কাজ করেছেন এবং পার্লারের ম্যানেজার হিসেবে কাজ করেছেন একটা সময়। অনেক পরিশ্রমের পর তিনি বাংলা ইন্ডাস্ট্রিতে প্রতিষ্ঠা পেয়েছেন। এত বছর অভিনয় জগতে কোনদিন বিন্দুমাত্র কোন অ-ভিযোগ ওঠেনি তার বি-রুদ্ধে । কিন্তু আজ এতো বছর পর হঠাৎ করে তার বি-রুদ্ধে এ ধরনের অ-ভিযোগ উঠেছে হতবাক তার অনুরাগীরা ।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button