দারুন কায়দায় ইন্টারনেট পরিষেবা ছাড়াই এখন বাড়িতে বসেই করতে পারবেন আধার কার্ডের যে কোনো ভুল ত্রুটি সংশোধন, রইল পদ্ধতি!

নিজস্ব প্রতিবেদন :- বর্তমানে ভারত সরকার দ্বারা এমন কিছু তথ্য প্রতিটি নাগরিকের জন্য তৈরি করা হয়েছে যেগু-লি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ তথ্য হিসেবে বিবেচিত হচ্ছে । এবং এগুলোর মধ্যে সর্বপ্রথম হলো আধার কার্ড । ২০১৪ সালে ক্ষ-মতায় আসার পর থেকেই এ ধরনের কাজ কর্মের সাথে যুক্ত হয়ে পড়ে ভারত সরকার । এবং প্রতিটি নাগরিককে আধার কার্ড থাকা বাঞ্ছনীয় বলে ঘোষণা করেন । সেই অর্থের প্রত্যেকটি নাগরিক এই ছোট শিশুদেরকে প্রাপ্তবয়স্ক মানুষের আধার কার্ড এর সাথে নিজেকে যুক্ত করতে পেরেছে।

আপনি এমন টা বলতে পারেন যে বর্তমান যুগে আগারকার সবথেকে গুরুত্বপূর্ণ একটি ডকুমেন্ট বা নথিপত্র হলো এটি । গাড়ির লাইসেন্স হোক বা রেশন কার্ড তৈরি প্যান কার্ড তৈরি এমনকি বিমানের টিকেট কাটার ট্রেনের টিকিট কাটা সবকিছুতেই এখন আধার কার্ড এর প্রয়োজন পড়ছে । এর থেকে আপনি বুঝতেই পারছেন যে কতটা গুরুত্বপূর্ণ ক্ষেত্র আমাদের কাছে । কিন্তু কখনো কখনো আধার কার্ডের কিছু ভুল থেকে যায় । তাড়াহুড়োর কারণজনিত বা অন্য কোন কারণে সেই ভুলগুলি নিয়েই আমাদেরকে চলতে হয় কিন্তু এবার থেকে সে ভুল শুধরে নিতে পারবেন আপনি বাড়িতে বসে ।

না দরকার পড়বে না কোন ইন্টারনেট পরিষেবা। ইন্টারনেট ছাড়াই এই সমস্ত ভুল গুলো আপনি বাড়িতে বসে সমাধান করতে পারবেন। আধার কার্ডের ভুল সংশোধন তার পাশাপাশি লক-আনলক এবং বিভিন্ন আইডি জেনারেট করার জন্য এখন আর ইন্টারনেট পরিষেবা দরকার পড়বে না । শুধুমাত্র একটি এসএমএস এর মাধ্যমে আপনি এই কাজটি সম্পন্ন করতে পারবেন । তার জন্য প্রথমে আপনাকে আপনার রেজিস্টার মোবাইল নাম্বার থেকে ১৯৪৭ একটি এসএমএস করতে হবে ।আধার কার্ড সংক্রান্ত যেকোন ধরনের সমস্যার নাম্বার এক থাকলেও পাল্টে যাবে এসএমএস এর ফরমেট ।

যদি আপনি ভার্চুয়াল আইডি পেতে চান তাহলে আপনাকে এসএমএস করতে হবে জই GVID পর আপনার আধার কার্ডের শেষ চারটি সংখ্যা লিখে। আপনি যদি আপনার ভার্চুয়াল আইডি ফিরে পেতে চান তবে RVID এবং নিজের Aadhaar এর শেষ চারটি সংখ্যা লিখতে হবে। OTP পাবার জন্য লিখুন GETOTP এর সাথে Aadhaar কার্ডের শেষ চারটি সংখ্যা। OTP এর জন্য ভার্চুয়াল ID ব্যবহার করতে চাইলে, সেক্ষেত্রে পাঠাবেন GETOTP লেখার পর স্পেস দিয়ে ভার্চুয়াল ID নম্বর, তারপর স্পেস দিয়ে Aadhaar নম্বরের শেষ ৬ টি সংখ্যা।

আধার কার্ড লক করার পদ্ধতি দুটি ধাপে সম্পন্ন হয়। প্রথমে GETOTP এর সাথে আপনার আধার নম্বরের শেষ চারটি সংখ্যা। দ্বিতীয় ধাপে LOCKUID এর সাথে আধার নম্বরের শেষ চার সংখ্যা এবং OTP টি লিখুন। অপরদিকে আধার কার্ড আনলক করতে গেলে প্রথম ধাপটি একই থাকবে। আর দ্বিতীয় ধাপে লিখতে হবে UNLOCKUID এবং ভার্চুয়াল ID নম্বরের শেষ ছয়টি সংখ্যা আর OTP টি। এই সুবিধা প্রকাশ্যে জানাজানি হওয়ার পর অনেকেরই অনেক ধরনের সুবিধা হয়েছে কারণ আমাদের দেশে অনেকে যারা ইন্টারনেট ব্যবহার করতে পারেন না।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button