এই একটি মাত্র ভুলের জন্য আটকে রয়েছে লক্ষ লক্ষ গৃহবধূর লক্ষীর ভান্ডারের টাকা! মাথায় হাত নবান্নের!

নিজস্ব প্রতিবেদন :- লক্ষী ভান্ডার প্রকল্প নিয়ে রীতিমতো বড়োসড়ো চিন্তা করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এবং নবান্ন। কারণ ইতিমধ্যে লক্ষী ভান্ডার প্রকল্পের আবেদন করেছে প্রায় দেড় কোটির বেশি মহিলারা এবং এর মধ্যে প্রাথমিক পর্যায়ে কুড়ি লক্ষ মহিলার অ্যাকাউন্টে টাকা পাঠানো হয়েছিল লক্ষী ভান্ডার প্রকল্পের জন্য যে টাকা বরাদ্দ করা হয়েছিল তা ইতিমধ্যে ভাগ করে দেওয়া হয়েছে জেলা শাসকের হাতে এবং প্রতিটি জেলার জন্য যত পরিমাণ টাকা বরাদ্দ সেই টাকা পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে জেলা শাসকদের হাতে।

কিন্তু প্রশ্ন হচ্ছে এমন বহু মানুষ রয়েছেন যাদের নথিপত্রের সমস্যা রয়েছে। যার ফলে টাকা প্রবেশ করার পর সেই টাকা রিটার্ন চলে আসছে সরকারের কাছে। এমতাবস্থায় বড় চিন্তার মুখোমুখি হচ্ছে নবান্ন। পুজোর আগে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কথা অনুসারে প্রত্যেক মহিলার একাউন্টে 500 টাকা এবং হাজার টাকা করে প্রবেশ করে যাওয়ার কথা ।কিন্তু সূত্র অনুসারে মনটা জানা যাচ্ছে যে 35 লক্ষ মহিলার আবেদনপত্র সম্পূর্ণ রকম ভাবে বাতিল করা হয়েছে।

কারণ তাদের আবেদনপত্র অসম্পূর্ণ ছিল। কারণ কারুর ব্যাংকের অ্যাকাউন্ট নেই কেউ ব্যাংকের অ্যাকাউন্ট নম্বর ভুল দিয়েছে কারুর ব্যাংক কেওয়াইসি করা নেই। সব মিলিয়ে 35 লক্ষ মহিলার আবেদনপত্র আপাতত স্থগিত রয়েছে বলে জানা যাচ্ছে। সেই সমস্ত সমস্যাগুলিকে দ্রুত মিটিয়ে নেওয়া নির্দেশ দিয়েছে রাজ্যের মুখ্যসচিব। তাই গ্রাহকদের সাথে ফোনে যোগাযোগ করার পরিকল্পনা করেছে নবান্ন।

লক্ষী ভান্ডার প্রকল্পের জন্য প্রাথমিক পর্যায় 2 কোটি 45 লক্ষ টাকা বরাদ্দ করা হয়েছিল এবং ইতিমধ্যে প্রায় 850 কোটি টাকা খরচ হয়ে গিয়েছে ।মোট লক্ষী ভান্ডার প্রকল্পের জন্য বরাদ্দ টাকার পরিমাণ হচ্ছে 17 হাজার কোটি টাকা ।ষষ্ঠীর দিন 80 লক্ষ মহিলার একাউন্টে টাকা প্রবেশ করে গেছে।এর আগে 20 লক্ষ মহিলার একাউন্টে টাকা প্রবেশ করেছিল। পাশাপাশি নথি গত সমস্যা যাতে 30 শে অক্টোবর এর মধ্যে মিটে যায় তার নির্দেশ দিয়েছে রাজ্যের মুখ্যসচিব।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button