আবারও দাম বাড়তে চলেছে বিড়ি-সিগারেট ও বিভিন্ন তামাকজাত দ্রব্যের! কেন্দ্র সরকারের এই সিদ্ধান্তে ফুঁসছে আম জনতা!

নিজস্ব প্রতিবেদন :- দেশজুড়ে যেভাবে বেড়ে চলেছে নে-শাগ্রস্ত মানুষের সংখ্যা। তাতে আগামী দিনে এই সংখ্যা কোথায় গিয়ে দাঁড়াবে তা হয়তো সকলের অজানা। তামাকজাত দ্রব্য সেবন করা স্বাস্থ্যের পক্ষে ক্ষতিকর এ কথা আমরা প্রত্যেকে জানি। তবুও বর্তমান সময়ে প্রতিনিয়ত-ই তামাকজাত দ্রব্য সেবন করার পথে এগিয়ে চলেছে লক্ষ লক্ষ যুবক এমনকি যুবতীরা। যদিও কেন্দ্রীয় সরকার বারবার তামাক বিরোধী প্রচার চালিয়েছে।

বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে সচেতন করার চেষ্টা করেছে। কিন্তু কোন রকম ভাবেই এই অবস্থাকে ঠিক করা যায়নি। তাই এই ধরনের সিদ্ধান্ত নিতে বাধ্য হল কেন্দ্রীয় সরকার। আমরা জানি বিড়ি সিগারেট বা তামাক জাতীয় দ্রব্য শরীর ঠিক কতটা পরিমাণ ক্ষতি করে। নিকোটিন শরীরের মধ্যে প্রতিনিয়ত জমা হতে হতে একসময় সেটি প্রভাব ফেলে ফুসফুসের উপর।

এবং কোন কারণে যদি ফুসফুস বি-কল হতে শুরু করে তাহলে তার পরিণাম যে কি ভ-য়ঙ্কর হতে পারে সে কথা আমাদের প্রত্যেকেরই জানা শ্বা-সক-ষ্ট থেকে শুরু করে একাধিক রো-গব্যা-ধি সৃষ্টি হতে পারে শরীরের ভেতরে। এমন কি বাসা বাঁধতে পারে ম-রণব্যাধি ক্যা-ন্সার। সিগারেটের প্যাকেটের উপরে তামাক ক্যান্সারের কারণ এই লেখাটা বারবার অনুসরণ করার পরও আমরা এই পথ থেকে বেরিয়ে আসতে পারছিনা।

তাই এমনটা মনে করা হচ্ছে যে কেন্দ্রীয় সরকারের এই সিদ্ধান্ত কিছুটা হলেও কাজে দেবে। আগামী বছরের ফেব্রুয়ারি মাসেই কর বসানো হবে বিড়ি এবং সিগারেট এর উপর যার ফলে দাম বাড়তে পারে বিডি এবং সিগারেটের এমনটা জানা যাচ্ছে কেন্দ্রীয় সরকারের তরফ থেকে। কেন্দ্রীয় সরকার সূত্রে জানা গিয়েছে ফেব্রুয়ারীতে যে বাজেট পেশ করা হবে সেখানেই বিড়ি এবং সিগারেটের দাম বাড়ানোর কথা ঘোষণা করা হবে।

‌ এছাড়াও জানা গিয়েছে ২৮% জিএসটি ছাড়াও বাড়তি সেস এর উপর চাপানো হতে পারে। বিদেশের বাজারে তামাকজাত দ্রব্যের উপর ৭৫% সেস চাপানো হয়। ভারতেও এই বিড়ি সিগারেটের মূল্য বাড়তে চলেছে অনেকটাই। বিড়ি সিগারেট এবং তামাকজাত দ্রব্যের উপর যদি মূল্যবৃদ্ধি ঘটানো যায় তাহলে হয়তো অনেকেই এই পথ থেকে সরে আসতে পারে এমনটা অনুমান সরকারের।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button